উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির একাধিক লিখিত অভিযোগ

268

মেহেরপুরের গাংনীতে গণগুনানি অনুষ্ঠানে দুদক কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম
দুর্নীতিবাজদের ধরিয়ে দিন, নিজে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিন

গাংনী অফিস: মেহেরপুরের গাংনীতে দুদকের আয়োজনে গণগুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ১০টার দিকে গাংনীর সন্ধানী মেডিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের হলরুমে সেবাগ্রহীতা ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের মুখোমুখি করে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ব ব্যাংকের সহযোগিতায় ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি আয়োজনে এবং মেহেরপুর জেলা ও গাংনী উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্বাবধায়নে  এ গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ’র সভাপতিত্বে গণশুনানিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন দুদক খুলনা বিভাগীয় পরিচালক ড. আবুল হাসান, কুষ্টিয়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপপরিচালক আব্দুল গাফফার, গাংনী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান, গাংনী উপজেলা দুনীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সন্ধ্যানী স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক আবু জাফর, পলাশীপাড়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার প্রকল্প পরিচালক কামরুল হাসান বিপ্লব ও জেলা এনজিও সমিতির সভাপতি মোশারেফ হোসেন প্রমুখ।
দুদক কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম বলেছেন, দেশকে এগিয়ে নিতে হলে দুর্নীতিবাজদের ধরিয়ে দিয়ে নিজেদেরকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। সমাজের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে দুর্নীতি প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে দুদক থেকে ১০০টি মামলার মধ্যে ৩৭ মামলা প্রমাণ করা সম্ভব হয়েছে। বাকি মামলাগুলো তথ্য প্রমাণ থাকার পরেও অজ্ঞাত কারণে হেরেছে। দুদক তার কাজের গতি আনতে ৯০০ অফিসারকে দেশে ও বিদেশে থেকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে। যাতে তারা দুর্নীতির ধরণ চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারে।
অনুষ্ঠানে সেবাগ্রহিতাদের বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে বক্তব্য দেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মীর হাবিবুল বাশার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রকৌশলী লিয়াকত হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা দিলিপ কুমার সেন, উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ইসতিয়াজ ইউনুস, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান, উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার ফখরুজামান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা তৌফিকুল ইসলাম। গণশুনানিতে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি), উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা প্রকৌশলী, উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ উপস্থাপন করেন অভিযোগকারী। এর বেশির ভাগ সময়ে বিভিন্ন দুনীতি অনিয়ম নিয়ে কথা বলেন, গাংনী পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম আশরাফ ভেন্ডার। এছাড়াও সাংবাদিকরাসহ অনেকেই লিখিত প্রায় ৩৫টি অভিযোগ করেন।