চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ২৬ আগস্ট ২০১৬

ঈদে ভারতে গরু বা উট কোরবানি দেয়া যাবে না

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ২৬, ২০১৬ ২:০৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ ডেস্ক: ভারতে বিজেপি ও সঙ্ঘ পরিবার যেভাবে গরু রক্ষা নিয়ে মেতে রয়েছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে এবারের ঈদে গরু, উট বা অন্যান্য পশু কোরবানি নিয়ে অশান্তির মেঘ ঘনীভূত হচ্ছে। মুসলিমদের কাছে বড় দুই উৎসবের অন্যতম এই কোরবানির ঈদ। আর এই ঈদে গবাদিপশু, উট, দুম্বা কোরবানি দেয়া মুসলিমদের ধর্মীয় রীতির মধ্যে পড়ে। কিন্তু এ বছর গবাদিপশু হত্যা এবং পরিবহনের ওপরে বিধিনিষেধ আরোপ করে সব রাজ্যকে চিঠি পাঠিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। অবশ্য চিঠিটি পাঠানো হয়েছে পরিবেশ মন্ত্রকের অধীনস্থ ভারতীয় প্রাণিকল্যাণ বোর্ডের পক্ষ থেকে। কিছুদিন আগেই রাজ্য সরকারের মুখ্য সচিব, রাজ্য পুলিশের ডিজি এবং রাজ্য প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্তাদের চিঠি পাঠিয়ে ভারতীয় প্রাণিকল্যাণ বোর্ডের সচিব এম রবিকুমার নির্দেশ দিয়েছেন, কোরবানির ঈদে অবাধে গরু, বাছুর, উট এবং অন্যান্য পশুর নিধন চলবে না। অবৈধ উপায়ে গবাদিপশুর পরিবহন যেন না হয়, রাজ্যগুলোকে তাও নিশ্চিত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোরবানি বন্ধ করতে প্রাণিকল্যাণ বোর্ড কড়া নির্দেশ দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে, ভারতে কোথাও কোরবানির জন্য গরু বা উট নিধন করতে দেয়া যাবে না। এমনকি কোরবানির ঈদের আগে যারা অবৈধভাবে পশু পরিবহন করছেন এবং ঈদের দিন যারা আইন ভাঙবেন, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলা হয়েছে। পশু হত্যাবিরোধী আইন এবং আদালতের বিভিন্ন রায়ের পুঙ্খানুপুঙ্খ উল্লেখ করা হয়েছে সেই চিঠিতে। আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার কথাও একাধিকবার লেখা হয়েছে। নির্দেশ দিয়েই প্রাণিকল্যাণ বোর্ড হাত গুটিয়ে বসে থাকছে না। রাজ্য সরকারগুলো বোর্ডের নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে কী ব্যবস্থা নিয়েছে তাও বিস্তারিতভাবে বোর্ডকে জানাতে বলা হয়েছে। ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের মতো পশ্চিমবঙ্গেও এ চিঠি এসেছে। জানা গেছে, বোর্ডের চিঠিতে যেভাবে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে তা অনুসরণ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।