চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ইউয়ানে লেনদেন কতটা সহজ হবে

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২২ ৮:১৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:
চীনের সাথে ইউয়ানে লেনদেন করে ডলার সঙ্কট কাটাতে চায় বাংলাদেশ। অব্যাহত ডলার সঙ্কটের মুখে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলোকে চীনের মুদ্রা ইউয়ানে অ্যাকাউন্ট খোলার অনুমোদন দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে। বিবিসি। সাম্প্রতিক সময়ে তীব্র ডলার সঙ্কটের কারণে বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিকল্প মুদ্রা ব্যবহারের বিষয়টি আলোচনায় আসে। বিশ্বের পাঁচটি দেশের মুদ্রাকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল- আইএমএফ ‘হাই ভ্যালু কারেন্সি’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। চীনের ইউয়ান তার অন্যতম। আইএমএফের কারেন্সি বাস্কেটে ইউয়ান স্বীকৃতি পেয়েছে ২০১৬ সালে। এর পর থেকে আইএমএফের পর্যালোচনায় মুদ্রা হিসেবে ইউয়ান আগের চেয়ে শক্তিশালী হয়েছে।
ইউয়ানে লেনদেনের গুরুত্ব কোথায়:
চীন হচ্ছে বাংলাদেশে শীর্ষ রফতানিকারক দেশ। বাংলাদেশ প্রতি বছর চীন থেকে আমদানি করে ১৪ থেকে ১৫ বিলিয়ন ডলারের মতো পণ্য। কিন্তু বিপরীতে বাংলাদেশ এখনো চীনে এক বিলিয়ন ডলারের পণ্য রফতানিতেও পৌঁছাতে পারেনি। আমদানি-রফতানিতে বাংলাদেশ সবসময় ডলার ব্যবহার করে আসছে। সাবেক ব্যাংকার ও পর্যবেক্ষক নুরুল আমিন বিবিসি বাংলাকে বলেন, ইউয়ান হচ্ছে এমন এটি মুদ্রা যেটি বাংলাদেশ এবং চীন পরস্পরের সাথে বাণিজ্যে ব্যবহার করতে পারে। ইউয়ান মুদ্রায় চীনের সাথে লেনদেনের অর্থ হচ্ছে, ডলার সঙ্কট পাশ কাটিয়ে লেনদেন করা, যেটা দুটো দেশ গ্রহণ করবে, বলেন মি. আমিন। তবে চাইলেই ইউয়ানের মাধ্যমে দ্রুত লেনদেন করা যাবে কি না সেটি নিয়ে সংশয় আছে। এর বড় কারণ হচ্ছে, ইউয়ানের দাম কিভাবে নির্ধারিত হবে। বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রা আসে রফতানি এবং রেমিট্যান্স থেকে। দুটোই আসে ডলারে। তা ছাড়া চীনে যেহেতু বাংলাদেশের রফতানি এক বিলিয়ন ডলারেরও কম সেহেতু ইউয়ানের জোগান বেশি থাকবে না। আমাদের যদি এক্সপোর্ট বেশি হতো তাহলে ইউয়ান বেশি জমা থাকত বলেন নুরুল আমিন। তবে চীনের সাথে মুদ্রা বিনিময়ের মাধ্যমে লেনদেন করা সম্ভব বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা দেখবে বিনিময়ে টাকার মূল্যমানের সাথে ইউয়ানের মূল্যমান কত হয়। চীন এখন পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম শক্তিশালী অর্থনীতি। তাদের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিও বেশ ভালো এবং তাদের সাথে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্ক আছে। সে ক্ষেত্রে চীনের মুদ্রার ওপর ভরসা করা যায়, বলেন মি. আমিন। ইউয়ান এখনো ডলারের মতো আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য হয়নি। তিনি বলেন, ইউয়ান ডলারের পর্যায়ে যেতে কত সময় লাগবে সেটা জানি না। তবে আমরা চীনের ওপর আস্থা রাখতে পারি বন্ধু দেশ হিসেবে।
ব্যবসায়ীরা কী বলছেন:
ইউয়ানে লেনদেন করার ক্ষেত্রে বিষয়টি খুব একটা সহজ হবে বলে মনে করেন না বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা। তাদের প্রশ্ন হচ্ছে, চীনে রফতানি বেশি না করলে ব্যাংকগুলোর কাছে ইউয়ান কতটা থাকবে? বাংলাদেশের প্রধান রফতানি পণ্য তৈরী পোশাক, যা সবচেয়ে বেশি রফতানি হয় ইউরোপ এবং আমেরিকায়। বাংলাদেশের শীর্ষ স্থানীয় নিটওয়্যার রফতানিকারক এবং বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফেকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ফজলুল হক বলেন, চীনের সাথে ইউয়ানে বাণিজ্য করতে ভালো। কারণ চীনও ইউয়ানে লেনদেন করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। তবে বিষয়টি সফলভাবে করা যাবে কি না সেটি নিয়ে সন্দেহ আছে। চীনের সাথে পুরো লেনদেন হয়তো ইউয়ানে করা যাবে না, তবে আংশিক হয়তো করা যেতে পারে। তাতে ডলারের ওপর কিছুটা চাপ কমতে পারে। ব্যাংকগুলোর কাছে ইউয়ান কতটা আছে সেটা একটা বিষয়। আমরা তো চীনে খুব বেশি এক্সপোর্ট করি না। ব্যাংকগুলোর কাছে যদি পর্যাপ্ত ইউয়ান না থাকে তাহলে ডলার দিয়েই ইউয়ান কিনতে হবে, বলেন ফজলুল হক। তারপরেও ইউয়ানে কিছু লেনদেন করে ডলার যতটা সাশ্রয় করা যায় সেটাই ভালো। ডলার সঙ্কট সামাল দেয়ার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করা হচ্ছে- এটি তারই অংশ বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা।
ফজলুল হক বলেন, রফতানিকারকদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে তারা কত ডলার আয় করছে। বিষয়টিকে তারা সবসময় ডলারেই হিসাব করেন। তিনি মনে করেন, যারা রফতানি করবে তারা হয়তো ইউয়ানে পরিশোধ নাও চাইতে পারে। এ ক্ষেত্রে জটিলতা হতে পারে। আমি যখন ইউয়ানে এক্সপোর্ট করব তখন ইউয়ানের সাথে ডলারের একটা হিসাব করব। ইউয়ানের রেট কেমন হবে, ব্যাংক আমাকে কী রেট দেবে ডলারের রেট তো নির্ধারিত। ইউয়ানে বাণিজ্য করলে সেটা তো আসবে ব্যাংকের কাছে। ব্যাংক তখন আমাকে ইউয়ানের কী রেট দেবে, এ বিষয়গুলো পরিষ্কার করা দরকার, বলেন ফজলুল হক।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।