ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ: দাদার জেল

233

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বুজরুকগড়গড়ি দাসপাড়ায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল ফারহানা নামের এক চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী। এ ঘটনায় মেয়ের দাদা রবিউল ইসলামকে চারদিনের কারাদ- দিয়েছেন মোবাইল কোর্ট। গতকাল রোববার দুপুর ৩টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াশীমুল বারী এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বুজরুকগড়গড়ি মুন্সিপাড়ার ফারুক হোসেনের মেয়ে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ফারহানার বাল্য বিয়ে হচ্ছে, এমন অভিযোগ চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের নিকট আসে। খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াশীমুল বারী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পরে মেয়ের দাদাকে চারদিনের কারাদ- প্রদান করেন। এ বিষয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াশীমুল বারী বলেন, ট্রিপল নাইন (৯৯৯) থেকে সংবাদ আসে চুয়াডাঙ্গা বুজরুকগড়গড়িতে একটি বাল্যবিয়ের ঘটনা ঘটছে। ঘটনাস্থলে গেলে বিয়ের আয়োজন উপলব্ধি করতে দেখা যায়। পরে মেয়ের দাদা রবিউল ইসলামকে চারদিনের কারাদ- প্রদান করা হয়েছে। ফারহানা চুয়াডাঙ্গা শাহাদাত হোসেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানা গেছে।