চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ১৪ ডিসেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আ.লীগ থেকে ৩৫ নেতা-কর্মী বহিষ্কার

ঝিনাইদহে নৌকার প্রার্থীর বিপক্ষে ভোট করায়
ঝিনাইদহ অফিস:
ডিসেম্বর ১৪, ২০২১ ৯:৫২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বাঘা বাঘা ৩৫ প্রভাবশালী নেতাকে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে ভোট করায় বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত নেতারা উপজেলা ও আঞ্চলিক রাজরীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। দলীয় সিদ্ধান্ত ভঙ্গ করায় ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের ৩৫ জনকে বহিষ্কার করা হয়। দলের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আ. রশিদ। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে ৪র্থ ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বহিষ্কৃতদের মধ্যে অনেকেই তালিকাভুক্ত রাজাকার পরিবারের সন্তান রয়েছেন, যারা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।

দলের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৬ ডিসেম্বর ছিল মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। দলীয় সতর্কতা ও নির্দেশ ভঙ্গ করে ১৫ ইউনিয়নে ৩৫ জন প্রার্থী তাঁদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করায় তাদের বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কৃতরা হলেন- ১ নম্বর সাধুহাটি ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী নাজির উদ্দিন, ২ নম্বর মধুহাটিতে আলতাফ হোসেন, ফারুক হোসেন জুয়েল, তহুরুল ইসলাম, ৪ নম্বর হলিধানী ইউনিয়নে অ্যাড. এনামুল হক নিলু, ফাতিমা খাতুন, যুবলীগ নেতা নুর এ আলম বিপ্লব, হরুন অর রশিদ মিয়া, ৫ নম্বর কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নে সাহিদুর রহমান সণ্টু, সিরাজুল করিম, ৬ নম্বর গান্না ইউনিয়নে নাসির উদ্দিন মালিতা, ময়নাল হোসেন, ৭ নম্বর মহারাজপুরে আবু বকর, খুরশিদ আলম, ৯ নম্বর পোড়াহাটি ইউনিয়নে মো. আশরাফ আলী, মো. বদিউজ্জামান অ্যাপো, ১০ নম্বর হরিশংকরপুর ইউনিয়নে খন্দকার ফারুকুজ্জামান ফরিদ, ১১ নম্বর পদ্মকর ইউনিয়নে বিকাশ বিশ্বাস, ১২ নম্বর  দোগাছি ইউনিয়নে আব্দুল মান্নান, গোলাম কিবরিয়া কাজল, জাহাঙ্গীর আলম শিবলী, ফয়েজুল্লাহ ফয়েজ, সিরাজুল ইসলাম, ১৩ নম্বর ফুরসুন্ধি ইউনিয়নে আবু সাইদ শিকদার, ১৪ নম্বর ঘোড়শাল ইউনিয়নে তিতাশ বিশ্বাস, জাহিদুল ইসলাম, ১৫ নম্বর কালীচরণপুর ইউনিয়নে এনামুল বিশ্বাস, কাইয়ুম হোসাইন, যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, ১৭ নম্বর নলডাঙ্গায় মোলায়েম খান, কবির হোসেন, রবিউল ইসলাম, সাইফুল আলম ও মো. রাকিবুল ইসলাম লিমন।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আ. রশিদ বলেন, শেখ হাসিনা যাকে মনোনীত করেছেন, আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা তাঁর পক্ষেই ভোট করবেন। নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। অনেক নেতা আছেন, যারা বিদ্রোহী প্রার্থীদের পক্ষে গোপনে কাজ করছেন, তাদের সহায়তা করছেন। নৌকার প্রার্থীরা অভিযোগ দিলে আমরা বিদ্রোহী প্রার্থীর সহায়তাকারীর বিরুদ্ধেও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।