চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ২৭ অক্টোবর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আলমডাঙ্গা রেলস্টেশন সংলগ্ন মাদকপট্টিতে চুয়াডাঙ্গা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযান হ্যান্ডকাপসহ আসামীর পলায়ন! ঘন্টা তিনেক পর আবারো আটক

সমীকরণ প্রতিবেদন
অক্টোবর ২৭, ২০১৬ ১২:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

wertআলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা রেল ষ্টেশন সংলগ্ন মাদকপট্টি হিসেবে খ্যাত বস্তি থেকে মাদক উদ্ধারের সময় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কনষ্টেবল আশরাফকে বাটামপেটা করে চিহিৃত মাদক কারবারী রেজাউল হ্যান্ডকাপসহ পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটলে পরবর্তীতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ এএইচএম কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে এসআই আমির আব্বাস ফোর্সসহ বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৩ঘন্টা পর বিকাল ৪টায় আলমডাঙ্গা ওয়াপদার ভিতর থেকে হ্যান্ডকাপসহ তাকে আটক করে। আটকের সময় রেজাউলের কাছথেকে ৭পিস ইয়াবা এবং ৮পুরিয়া হিরোইন উদ্ধার করা হয়। আটকের পরে চুয়াডাঙ্গা ডিবির এসাআই ইব্রাহিম বাদি হয়ে রেজাউলের বিরুদ্ধে ডিবি সদস্যকে পেটানো ও মাদক রাখার অপরাধে আলমডাঙ্গা থানায় মামলা দায়েরপূর্বক আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করেছে। আজ রেজাউলকে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে জানা গেছে।
জানা গেছে, গতকাল চুয়াডাঙ্গা ডিবি পুলিশ আলমডাঙ্গা রেল স্টেশন সংলগ্ন মাদকপট্টি হিসেবে খ্যাত বস্তিতে এসআই ইব্রাহীম কনষ্টেবল আশরাফকে নিয়ে অভিযান চালায়। একপর্যায়ে হিরোইন ও ইয়াবা বিক্রির সময় রেজাউলকে কনষ্টেবল আশরাফ হাতেনাতে ধরে ফেললে মাদকব্যবসায়ী রেজাউল ও তার সাথে থাকা ৬/৭জনের একদল মাদকাসক্ত ক্যাডার কনষ্টেবল আশরাফকে বাটামপেটা করে ক্যাডাররা হ্যান্ডকাপসহ রেজাউলকে নিয়ে পালিয়ে যায়। আর কনষ্টেবল আশরাফ ওখানে যন্ত্রণায় কাতরাতে থাকলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। স্থানীয়দের মনে প্রশ্ন জেগেছে আশরাফকে যখন মাদক কারবারী পেটায় তখন ডিবি’র এসআই ইব্রাহীম কোথায় ছিল? আলমডাঙ্গার আলোচিত মাদকব্যাবসায়ী শাজাহানের যোগসাজসে কনষ্টেবল আশরাফকে পেটাতে সাহস করে বলে প্রত্যক্ষদর্শী অনেকে বলেছে। এই শাহাজান লাইনম্যান শাজাহান নামে পরিচিত। এই লাইনম্যান শাজাহানের সাথে পুলিশের কিছু কর্মকর্তার সখ্যতা চোখে পড়ার মত..! এবিষয়ে ডিবি ওসি এএইচএম কামরুজ্জামান খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান বাকীদের ধরতে অভিযান চলছে। অভিযানকালে মাদকাসক্তদের কাছে ডিবি সদস্যের লাঞ্চিতের ঘটনা গতকাল টক অব দ্য আলমডাঙ্গায় পরিণত হয়। বিষয়টি খতিয়ে দেখে মাদকব্যবসায়ীসহ লাইনম্যান শাজাহানকে আটকপূর্বক ব্যবস্থা নিতে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সচেতনমহল।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।