চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ১ ডিসেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবে বাঁশবাড়িয়ার নিখোঁজ জিয়াউরের স্ত্রীর সাংবাদিক সম্মেলন স্বামীকে খুঁজে পেতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ১, ২০১৬ ৪:৩০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

IMG_20161130_120210

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবে ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া গ্রামের জিয়াউর রহমানকে পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জিয়াউর রহমানের স্ত্রী মোছাঃ শামীমা আক্তার। গতকাল তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার স্বামী বাঁশবাড়িয়া গ্রামের আইজেল হকের ছেলে জিয়াউর রহমান পান বরজ পাহারা দেওয়ার সময় গত ২১ নভেম্বর রাত্রে ৭/৮ জন লোক পুলিশ পরিচয় দিয়ে তাকে তুলে নিয়ে যায়। তাদের গায়ে পুলিশের পোশাক থাকায় অনেকে দেখলেও প্রতিবাদ করতে সাহস পায়নি। শামীমা আক্তার জানান, আমার স্বামীর নামে থানায় ১টি মামলার ওয়ারেন্ট আছে। অনেকেই ভেবেছে সেজন্যই তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে থানায় জেল হাজতে এবং অন্যান্য জায়গায় খোঁজাখুজি করেন আমার স্বামীর কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেনের কাছেও জানানো হয়েছে। ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক কাউছার আহমেদ বাবলু বিষয়টি নিয়ে পুলিশ, র‌্যাব, ডিবিসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়ে কোন হদিস পাননি। এমতাবস্থায় আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ পূর্বক আমার স্বামীকে খুঁজে পাওয়ার জন্য উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি। উল্লেখ্য, এ বিষয়ে গতকাল দৈনিক সময়ের সমিকরণ পত্রিকায় একটি সংবাদ প্রকাশিতও হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে অত্র অঞ্চলের মানুষ পুলিশ আতঙ্কে ভুগছে। এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেনের সাথে এই প্রতিবেদকের কথা হলে উনি বলেন বিষয়টি আমরা জানি। কিন্তু অত্র বিষয়ের সাথে থানা পুলিশ জড়িত নয়। মাঝে মধ্যে র‌্যাব অভিযান চালাচ্ছে, দোষ পড়ছে পুলিশের উপর। বিষয়টি নিয়ে আমি জেলা পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলেছি। গতকাল বিকালের দিকে এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।