চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ৬ ডিসেম্বর ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আলমডাঙ্গা পৌর আ.লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ৬, ২০২০ ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

আলমডাঙ্গা অফিস:
আসন্ন পৌর নির্বাচন উপলক্ষে আলমডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।
সভায় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি প্রশান্ত অধিকারী, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক সহিদুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য শাহ আলম, কাজী খালেদুর রহমান অরুন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সালমুন আহম্মেদ ডন, সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর আলাল উদ্দিন, আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম ও পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার।
পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আবেদনকারীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বর্তমান পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাদির গনু, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, আওয়ামী লীগের নেতা ও কুমারী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি জেলা পরিষদ সদস্য আবু মুছা।
পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান ফারুকের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সাইফুর রহমান পিণ্টু, দপ্তর সম্পাদক মাসুদ সালেহীন উৎপল, প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান রিপন, সোনা উল্লাহ, জাহাঙ্গীর আলম, খন্দকার মজিবুল হক, বাবু দীনেশ কুমার বিশ্বাস, জহুরুল হক স্বপন, পরিমল কুমার, রেজাউল হক তবা, সিরাজুল ইসলাম, সহিদুল হক মোল্লা প্রমুখ।
সভায় পৌর নির্বাচন নিয়ে আলোচনা শেষে সাতজনের আবেদনসহ নামের তালিকা চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এর আগে পৌর কমিটির ৯টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক নিজেরা বসে পৌর নির্বাচনে প্রার্থীর বিষয়ে আলোচনা করেন। সেখানেও সকলে প্রার্থীদের আবেদন জেলা কমিটিতে প্রেরণের কথা বলেন।

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।