আলমডাঙ্গা পশুহাটে গরু বিক্রি করে ফেরার পথে ডাকাতি : ৩ ডাকাত গ্রেফতার

448

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা পশুহাটে গরু বিক্রয় শেষে বাড়ী যাবার পথে কুমারি ইউনিয়নের পারদুর্গাপুর করিমপাড়া নিমবাগানের কাছে রাস্তায় গাছ ফেলে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতদল গরু বিক্রেতার কাছ থেকে ১লাখ ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এঘটনায় তিন ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা যায়, গত বুধবার আলমডাঙ্গার বৃহত্তর গরুর হাটে পারদুর্গাপুর গ্রামের মৃত বাহার আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর ওরফে কাজল, একই গ্রামের আবুজেলের ছেলে আব্দুল ৪টি গরু হাটে বিক্রয় করতে নিয়ে যায়। তারা ৩টি গরু বিক্রয় করে বাকি ১টা গরু নিয়ে ট্রলি করে বাড়ী ফিরছিল। পথিমধ্যে দুর্গাপুর করিমপাড়া নিমবাগানের কাছে পৌছালে ৪/৫ জনের ডাকাত দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে এবং হাতে থাকা রাম দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তাদের কাছে থাকা ১ লাখ ১০ হাজার টাকা ডাকাতি করে নেয়। এ সময় জাহাঙ্গীর ও আব্দুল ৩ ডাকাতকে চিনে ফেলে। পরে গ্রামবাসীর মানুষের সাড়া পেয়ে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। পরে জাহাঙ্গীর ও আব্দুল থানায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে পার দুর্গাপুর গ্রামের আইনাল হকের ছেলে আবুল কালাম (২৪), রোয়াকুলি গ্রামের আবু বক্করের ছেলে ইয়াকুব আলী(২৭) ও এরশাদপুর গ্রামের হায়াত আলীর ছেলে রকিকে (২৫) আটক করে। এ ছাড়াও খোকা নামের আরও একজনকে আটক করে আনার সময় কুমারি ইউপি চেয়ারম্যানের অনুরোধে তার জিম্মায় থানা পুলিশ খোকাকে ছেড়ে দেয়। বাকি ৩ জনকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। উল্লেখ্য, রকি মোটরসাইকেল যোগে ঐ দিন প্রথম খোকাদের বাড়ীতে গিয়েছিল।
আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেন জানান, ৩ জন ডাকাতকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জেলহাজতে প্রেরন করা হবে। তিনি আরো বলেন, খোকাকে ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে জাহাঙ্গীর ও আব্দুল বাদি হয়ে আলমডাঙ্গা থানায় একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেছে। আজ ৩ জনকে চুয়াডাঙ্গা আদালতে সোপর্দ করা হবে।