আলমডাঙ্গা থানার ফেসবুকে পোস্ট দেখে হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ফিরে পেলেন মা-বাবা

11

সমীকরণ প্রতিবেদক:
আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের দেওয়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম (ফেসবুকে) পোস্ট দেখে এক ঘণ্টা পর হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ফেরত পেলেন শিশুটির মা। গতকাল সোমবার দুপুরে আলমডাঙ্গা থানার সামনে কান্না করতে দেখে শিশুটিকে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর কবীর তাঁর অফিসে নিয়ে যান। পরে শিশুর ছবিসহ ফেসবুকে পোস্ট দেন।
জানা গেছে, কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার ঝুটিয়াডাঙ্গা আসাননগরের মামুন ও তাঁর স্ত্রী চামেলী খাতুন পাঁচ বছরের মেয়ে জান্নাতুলকে সঙ্গে নিয়ে আলমডাঙ্গা ফাতেমা টাওয়ারে রোগী নিয়ে আসেন। গতকাল সোমবার দুপুরে শিশুটির মা তাঁর শাশুড়ীর নিকট মেয়েকে রেখে রোগীর জন্য আলমডাঙ্গা শহরে এক আত্মীয়র বাসায় সুজি রান্না করতে যান। এসময় শিশুটি তার মাকে না পেয়ে টাওয়ারে থেকে দাদীকে না বলে রাস্তায় চলে আসে। শিশুটি পথ ভুলে হাঁটতে হাঁটতে থানার সামনে দাঁড়িয়ে কান্না করতে থাকে। শিশুটির কান্না দেখে থানার গেটে ডিউটিরত কনস্টেবল অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবীরকে বিষয়টি জানান। এসময় অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবীর শিশুটিকে তাঁর অফিসে নিয়ে আসেন। শিশুটিকে তার নাম-ঠিকানা জিজ্ঞাসা করলে সে তার নাম ও বাবা-মার নাম ছাড়া আর কিছুই বলতে পারে না। অফিসার ইনচার্জ শিশুটির নাম, বাবা-মায়ের নাম, ছবিসহ আলমডাঙ্গা থানার ফেসবুকে থানার সরকারি মোবাইল নম্বর উল্লেখ করে পোস্ট দেন।
ফেসবুকে পোস্ট দেখেই কিছুক্ষণ পর অফিসার ইনচার্জের নম্বরে শিশুটির এক আত্মীয় কল দিয়ে শিশুটি তাঁর আত্মীর মেয়ে বলে জানান। পরে শিশুটির মা চামেলী খাতুন আলমডাঙ্গা থানায় উপস্থিত হয়ে আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর কবীরের নিকট থেকে তাঁর মেয়েকে নিয়ে যান। এসময় আলমডাঙ্গা থানার এসআই সনজিত কুমার, এসআই আমিনুল হক, এসআই শামীমা উপস্থিত ছিলেন। এঘটনায় ফেসবুকে আলমডাঙ্গা অফিসার ইনচার্জকে সকলে প্রসংশা করতে থাকেন। তথ্যসূত্র- সাম্প্রতিকী ডট কম।