আলমডাঙ্গায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন, স্বামী আটক

40

আলমডাঙ্গা অফিস:
আলমডাঙ্গায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতনের মামলায় স্বামী হাসানকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে ঘোলদাঁড়ি পাইকপাড়া গ্রাম থেকে তাঁকে আটক করা হয়।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার আইলহাঁস ইউনিয়নের ঘোলদাঁড়ি-পাইকপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে হাসানের সাথে সদর উপজেলার ভুলটিয়া নবীনগর গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের মেয়ে দীপ্তি খাতুনের দুই বছর পূর্বে বিয়ে হয়। তাঁদের দাম্পত্য জীবনে একটি পুত্রসন্তান জন্ম হয়। বৈবাহিক সূত্রে দীপ্তির পিতা তাঁর জামাইকে একটি ডিসকভারি মোটরসাইকেল যৌতুক হিসেবে দেয়। মোটরসাইকেল দেওয়ার কয়েক মাস পরেই দীপ্তিকে তাঁর বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলেন হাসান। দীপ্তি তাঁর পিতার বাড়ি থেকে টাকা আনতে নারাজ হওয়ায় তাঁকে মারপিট করে। মেয়ের সুখের আশায় দীপ্তির পিতা আবারও ৪০ হাজার টাকা দেন। টাকা দেওয়ার ৬ মাস পার হতে না হতেই আবারও টাকার নেশা ওঠে হাসানের। শ্বশুরের ২ বিঘা জমি বিক্রয় করে ৫ লাখ টাকা আনতে বলে স্ত্রী দীপ্তিকে। দীপ্তি আবারও তাঁর বাবার নিকট থেকে জমি বিক্রয় করে টাকা আনতে পারবে না বলে জানায়। হাসান তাঁর স্ত্রীর ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে রুটি বানানো বেলুন দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এ ঘটনায় দীপ্তি গুরুতর আহত হওয়ার সংবাদে তাঁর পিতা জাহাঙ্গীর উপস্থিত হয়ে দীপ্তিকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় দীপ্তি বাদী হয়ে আলমডাঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করে। মামলায় গতকাল শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে পাইকপাড়া থেকে তাঁকে আটক করে পুলিশ। আজ হাসানকে যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করা হবে।