আলমডাঙ্গায় পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

286

৫ প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা
আলমডাঙ্গা অফিস/সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গা শহরে অভিযান চালিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরী ও বিক্রয়ের অপরাধে ২ প্রতিষ্ঠানকে ১৭ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নান একটি মিষ্টি কারখানায় ও একটি খাবারের হোটেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নান ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলমডাঙ্গা থানার এসআই আশিকুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে শহরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় শহরে চারতলার মোড়ে অধিকারী মিষ্টান্ন ভান্ডারের মিষ্টি তৈরীর কারখানায় ক্যানেল পট্টিতে অভিযান চালিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মিষ্টি তৈরির অপরাধে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এরপর পশুহাটে বাবুর খাবারের হোটেলে স্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরী ও পরিবেশন করার অপরাধে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
এদিকে, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর আইন ২০০৯ এর অধীন অভিযোগ দায়ের এবং অপরাধ ও দ-ের বিধানে, আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা বাজারে তিনটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে সাড়ে ২১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে এ জরিমানা আদায় করা হয়। জানা যায়, বুধবার খাসকররা বাজারে বিপাশা ফুড ফেক্টারীর মালিক নয়াজেশরকে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাবার তৈরি অভিযোগে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা, ইমরান টেড্রার্সের মালিক হানিফকে দ্রব্যের মেয়াদ না থাকার অভিযোগে ৪ হাজার টাকা জরিমানা, অর্জুন মিষ্টি ভান্ডারের মালিক অর্জুনকে পণ্যের ওজনের কারচুপি ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির অভিযোগে ২ হাজার ৫শ’ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চুয়াডাঙ্গা’র সহকারী পরিচালক মোহা. সজল আহম্মেদ। সহযোগীতায় ছিলেন খাসকররা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শাহাবুদ্দীন শেখসহ সঙ্গীও ফোর্স।