চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

আলমডাঙ্গায় ধান কাটা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ : উভয় পক্ষের ১৩ জন জখম

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৭ ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় জমির ধান কাটাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের গুরুতর জখম হয়েছে ১৩ জন। গতকাল সোমবার সকালে আলমডাঙ্গার চিলাভালকি গ্রামে ধারালো অস্ত্রসহ লাঠিসোটা নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের ওপর হামলা চালালে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদেরকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন, আলমডাঙ্গা উপজেলার চিলাভালকি গ্রামের লিটু শাহ, আশরাফ আলী, আজিজুল হক, শাহাবুদ্দিন, আমজাদ হোসেন, তোফায়েল হোসেন, কামাল হোসেন, আশাদুল হক, সেলিম উদ্দিন, বিপ্লব হোসেন, ইবারত হোসেন ও মোশারেফ হোসেন।
গ্রামসূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস ধরে গ্রামের ইদগাহ মাঠে ঢোকার পথ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে গ-গোল চলে আসছে। এরই মধ্যে সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আমজাদ হোসেনের লোকজন গ্রামের পাকড়াতলা মাঠে নিজেদের জমিতে ধান কাটতে গেলে আব্দুল কুদ্দুসের লোকজন বাধা দেয়। এতে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে আহত হয় ১৩ জন। আহতদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।
এক পক্ষের আবদুল কুদ্দস জানান, প্রতিপক্ষের লোকজন ঈদগাহ মসজিদে যাওয়ার পথে পগার (গর্ত) কাটছিল। এতে বাধা দিলে তারা রামদা, ফালাসহ ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। অপর পক্ষের মোশারেফ হোসেন জানান, আমাদের জমির ধান কাটতে গেলে তারা বাধা দেয়। এতে তারা ধারালো অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে কোপায় আমাদের লোকজনকে।
আলমডাঙ্গা থানার ওসি আকরাম হোসেন জানান, ‘ধান কাটা নিয়ে সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।’

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।