আলমডাঙ্গায় ডিগ্রি কলেজ সরকারী করণের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত

720

আনন্দ মিছিলে হুইপ ছেলুন জোয়ার্দ্দারের অংশগ্রহন
আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ সরকারী করনের প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত ডিড অব গিফট সম্পাদন হওয়ায় গতকাল সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এক বিশাল আনন্দ র‌্যালী আলমডাঙ্গা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে কলেজ মাঠে সুধী ও ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন আলমডাঙ্গা সরকারী কলেজের সভাপতি জাতীয় সংসদের হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি। তিনি বলেন, দীর্ঘ ৫২ বছরেও অনেকেই কথা দিয়েছে কিন্ত কেউ কথা রাখেনি। সরকার আসে সরকার যায়, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী দেশের প্রত্যেক উপজেলায় একটি কলেজ ও একটি করে স্কুল সরকারী করণের ঘোষনা দিলে আমি আলমডাঙ্গা ঐতিহ্যবাহি প্রাচীন এই কলেজেটির জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে সুপারিশ করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার সুপারিশ অনুযায়ী এই কলেজ সরকারী করণের ঘোষনা দেন। যা চুড়ান্ত পর্যায়ে সরকারের কাছে সমস্ত স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর করা হয়েছে। এখন থেকে তোমরা সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে। কলেজটি অনেক আগেই সরকারী করণ হতো কিছু ষড়যন্ত্রকারীর কারণে পিছিয়ে গেছে। এই ষড়যন্ত্রবারীরা আমার স্বাক্ষর জাল করে ভূয়া ডিও লেটার দিয়ে অন্য একটি কলেজ সরকারী করণের চেষ্টা করেছে। যা আমি নস্যাৎ করেছি। ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ারের সভাপতিত্বে অন্যন্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুর রশিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন, জেলা পরিষদ সদ্য আবু মুসা,থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফেখরুল আলম খান, কলেজ পরিচালনা পরিষদের সদস্য শাহ আলম, নাফিউল জোয়ার্দ্দার শান্ত রোকনুজ্জামান ডাবলু, আক্তারুজ্জামান বেগ, শেখ আব্দুল জব্বার, ফাস্ট ক্যাটিাল ইনভার্সিটির অর্থ পরিচালক আব্দুল মজিদ বিশ^াস, শিক্ষক প্রতিনিধি তাপস রশিদ, রিজিয়া সুলতানা টুম্পা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালমুন আহম্মেদ ডন, সাধারন সম্পাদক আলাল আহম্মেদ, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল হক, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার, নাহিদ হাসান তমালসহ প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সকল শিক্ষার্থীরা।