আলমডাঙ্গায় আরও এক নারীর শরীরে করোনা শনাক্ত

131

নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় বুধবার (৬ মে) বেলা ২টার পর আলমডাঙ্গায় আরও এক নারীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। বুধবার দুপুরে চুয়ডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসে এ রিপোর্ট এসে পৌঁছায়। জেলা সিভিল সার্জন এ তথ্য নিশ্চিত করেন । এ নিয়ে (৬ মে) চুয়াডাঙ্গায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা আট। বুধবার করোনা শনাক্ত হওয়া উক্ত ৮ জনের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিচ্ছে চুয়াডাঙ্গা করোনা কন্ট্রোল রুমের একটি মেডিকেল টিম। শারীরিক অবস্থা ও বাড়ির অবস্থা বিবেচনা করে তাঁদের আইসোলেসনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
জানা যায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার এক নারী কয়েকদিন পূর্বে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই নারীর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখায় তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে পাঠায়। উক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসায় রিপোর্টটি কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতল কর্তৃপক্ষ বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসে পাঠায়।
একই দিনে বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গা থেকে সংগৃহীত নমুনায় জেলার সাতজনকে করোনা শনাক্ত করে আইইডিসিআর ও যবিপ্রবি ল্যাব। এদিকে, যবিপ্রবির ল্যাবে পাঠানো নমুনার মধ্যে তিনটি নমুনা বাতিল করেছে বলে জানিয়েছে চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্য বিভাগ।
এদিকে, বুধবার (৬ মে) চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা থেকে ৮টি ও জীবননগর উপজেলা থেকে ৪টি নমুনাসহ মোট ১২টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা থেকে সংগৃহীত নমুনায় ৬ মে বুধবার করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭ জন এবং কুষ্টিয়া থেকে সংগৃহীত নমুনায় আলমডাঙ্গার আরও একজন করোনা শনাক্ত হওয়ায় বুধবার জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৮ জন।
চুয়াডাঙ্গা জেলায় এ পর্যন্ত মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ২০ জন। চুয়াডাঙ্গা থেকে সংগৃহীত নমুনায় ১৭ জন। জেলার বাইরে থেকে সংগৃহীত নমুনায় করোনা শনাক্ত তিনজন হলেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর গ্রামের এক ব্যক্তির ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলজি (নিকডু) হাসপাতালে অবস্থানকালে তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেয়। এ সময় তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠালে প্রাপ্ত রিপোর্টে তিনি করোনা শনাক্ত হন।
জীবননগর উপজেলার এক নারী যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেয়। এ সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠায়। উক্ত নমুনার রিপোর্টে তিনিও করোনা শনাক্ত হয়।
অপর দিকে, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃক সংগ্রহ করা নমুনা করোনা পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে পাঠালে উক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। রিপোর্টি কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতল কর্তৃপক্ষ বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসে পাঠায়।
এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. এ এস এম মারুফ হাসান বলেন, ৬ মে বুধবার চুয়াডাঙ্গা থেকে পাঠানো নমুনায় যবিপ্রব ল্যাব পাঁচজন, আইইডিসিআর দুইজন ও কুষ্টিয়া থেকে সংগৃহীত নমুনায় আলমডাঙ্গার আরও একজনসহ জেলায় মোট ৮ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের আইসোলেসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করণের জন্য একটি টিম কাজ করছে। করোনা শনাক্তদের মধ্যে যাদেরকে নিজ বাড়িতে আইসোলেসনে রাখা যাবে না, তাঁদেরকে হাসপাতালের আইসোলেমনে নেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিস থেকে (৬ মে) প্রাপ্ত সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী জেলা থেকে মোট নমুনা সংগ্রহ ৪০৯টি, নমুনা বাতিল ৩টি, প্রাপ্ত রিপোর্ট ৩২১টি, পজেটিভ ১৭টি, নেগেটিভ ৩০৪টি, সুস্থ ১ ও মৃত্যু ১। জেলার বাইরে থেকে সংগৃহীত নমুনায় করোনা শনাক্ত ৩টি। চুয়াডাঙ্গা জেলায় মোট করোনা শনাক্ত ২০ জন। বুধবার পাঠানো ১২টি নমুনাসহ ফলাফল পেতে বাকি আছে ৮৫টি।