চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৯ আগস্ট ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আলমডাঙ্গায় অবশেষে লিজ গ্রহীতা সাধন মণ্ডলের পক্ষে অফিসের রায় : প্রশাসনের কাছে সাধন মণ্ডলের সুবিচার প্রার্থনা

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৯, ২০১৬ ১:২৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের তফশিলকৃত জমির লীজ গ্রহীতা মোঃ সাধন মন্ডল, পিতা: তারাচাদ মন্ডল, পানি উন্নয়ণ বোর্ডের ৭২ নং গোবিন্দপুর মৌজার আর এস ১০ খতিয়ানের ৪০৩৮ দাগে ১.৩৮ শতক খালি জায়গা লীজ গ্রহণ করে অস্থায়ীভাবে বসবাস করে আসছে। কিন্তু আলমডাঙ্গা কালিদাসপুর গ্রামের ফরজেন মন্ডলের ছেলে প্রভাবশালী ব্যক্তি আশরাফুল ইসলাম পিন্টু, বর্তমানে আলমডাঙ্গা কোর্টপাড়ায় বাড়ি করে বসবাস করছে। সম্প্রতি সাধন মন্ডলের লীজকৃত জমিতে জোরপূর্বক দখল নেয় আশরাফুল ইসলাম পিন্টু এবং সেখানে জোরপূর্বক অত্র জমি দখল করতে গেলে সাদন মন্ডলের পক্ষ থেকে বাধা দিতে গেলে পিন্টু, তার ছেলে সজীব, সাজু, সাকিব, সকলে মিলে সাধন মন্ডলের স্ত্রী আকলিমা খাতুনকে বেধকর মারপিট করে। এ ব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা আদালতে মামলা দায়ের করে সাদন মন্ডল। দির্ঘদিন এই জায়গা নিয়ে ঠেলা ঠেলির এক পর্যায়ে চুয়াডাঙ্গা আদালত থেকে আলমডাঙ্গা থানার উপর তদন্ত দিলে আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ এ ব্যাপারে তদন্ত পূর্বক একটি প্রতিবেদন দাখিল করে। চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম গোলাম সরোয়ার লিখিতভাবে পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) ও অফিসার ইনচার্জ আলমডাঙ্গা থানা বরাবর বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের তফসিলকৃত লিজ গ্রহীতা মালিকানা যাচাই সংক্রান্ত একটি পত্র প্রেরণ করেন। যার স্মারক নং- এল-৬/১৬৩৬, তারিখ: ০৭/০৮/২০১৬ ইং। অত্র পত্রে উল্লেখ করেন আলমডাঙ্গাপানি উন্নয়ন বোর্ডের কোলনীর ভেতরে বাসা নং- ২৯/বি (পিন্থ এরিয়া ১১৫৫.০০ বর্গফুট তৎসহ ১.৩৮ শতক খালি জায়গা/জমি) জমিটি মোঃ সাধন মন্ডল, পিতাÑ মৃত তারাচাদ মন্ডল, সাং- ওয়াবদা কোলনী, উপজেলা- আলমডাঙ্গার নামে অত্র দপ্তর স্মারক নং- এল-৬/৫৭৯, তারিখ ২৬/১১/২০১৪ খ্রিষ্টাব্দ মোতাবেক একসনা ভিত্তিতে ডিসেম্বর ২০১৫ ইং পর্যন্ত (পর্যায়ক্রমে নবায়নযোগ হিসাবে) অস্থায়ীভাবে লিজ প্রদান করা হয়েছে মর্মে উল্লেখ করা হয়। সাধন মন্ডল উদ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুবিচার প্রাথনা করেছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।