চুয়াডাঙ্গা বৃহস্পতিবার , ১৭ আগস্ট ২০১৭

আলমডাঙ্গার পশুহাটে ৫ গরু ব্যবসায়ী অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে! : হোটেলের খাওয়ার পরেই সবাই জ্ঞান হারালে ১৪ লাখ টাকার মধ্যে খোয়া যায় ৪ লাখ

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ১৭, ২০১৭ ৫:৫৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গার পশুহাটে ৫ গরু ব্যবসায়ী অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ৪ লাখ টাকা খুইয়েছেন। পশুহাটের একটি হেটেলে খেতে গেলে খাবারের সাথে অচেতন করার জন্য কিছু মিশিয়ে দিয়ে অজ্ঞান করে টাকা হাতিয়ে নেয় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। পরে অচেতন অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে আলমডাঙ্গার একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়।
জানা গেছে, আলমডাঙ্গার পশুহাটে নোয়াখালি জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর গ্রামের গরু ব্যবসায়ী মৃত হাফেজ রুহুল আমিনের ছেলে শফিউল্লাহ ও আনোয়ার হোসেন, একই গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে নূর ইসলাম, একই উপজেলার রফিকপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে তাজুল ইসলাম, লতিফপুর গ্রামের ফারুক হোসেন গরু কেনার জন্য আসে।
গরু ব্যবসায়ী একজন জানান, তাদের কাছে ১৪ লাখ টাকা ছিল। এক লাখ ৬০ হাজার টাকায় গরুও কেনেন। বিকেলের দিকে তারা পশুহাটের বাবুর হোটেলে খেতে যায়। এসময় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা তাদের খাবারের সাথে বিষাক্ত পদার্থ মিশিয়ে দিলে তারা সাথে সাথে অজ্ঞান হয়ে যায়। এসময়  তাদের কয়েক জনের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে তারা জানিয়েছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে। গরু ব্যবসায়ীদের বাকী প্রায় নয় লাখ টাকা আলমডাঙ্গা পশুহাট মালিকদের কাছে আছে বলে জানা যায়। তারা সুস্থ হলে সেই টাকা তাদের কাছে ফেরত দিবে হাট মালিকেরা। এদিক, অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের সনাক্ত করে গ্রেফতারে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করছে বলে জানা গেছে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।