চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ১৬ নভেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আমেরিকান মুসলিম নারীরা হিজাব পরতে ভয় পাচ্ছেন

সমীকরণ প্রতিবেদন
নভেম্বর ১৬, ২০১৬ ১:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

shihab326-1459179283-084fa51_xlarge

সমীকরণ ডেস্ক: ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই আমেরিকান মুসলিম নারীরা হিজাব পরতে ভয় পাচ্ছেন। হিজাব পরার কারণে দেশটির মুসলিম নারীরা হেইট ক্রাইমের শিকার হচ্ছেন। নির্বাচনী প্রচারণার সময় ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্র মুসলমানদের সম্পূর্ণভাবে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানান। কারণ তার মতে, মুসলমানরা সহিংসতাকে সমর্থন করে। একইসঙ্গে তিনি দেশটিতে বর্তমানে মুসলমানদের সংখ্যার হিসাব রাখতে একটি ডাটাবেস তৈরির প্রস্তাব দেন। ট্রাম্প যে মুহূর্তে হোয়াইট হাউসে ওঠার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন দেশটির তরুণ মুসলিম নারীরা টুইটারে জানাচ্ছেন যে, প্রকাশ্যে তাদের হিজাব, নেকাব বা বোরকা পরতে নিষেধ করা হচ্ছে। মাশাবলের রিপোর্টে বলা হয়, যুক্তরাজ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যপদ ত্যাগের জন্য ‘ব্রেক্সিট’ গণভোটের পর থেকে সেখানে জাতিগত এবং ধর্মীয় ঘৃণা ৪১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। যদিও এ নিয়ে অনেক মুসলিম নারী কিছুটা ভীত, তবুও সেখানে তাদের সমর্থন এবং সংহতি প্রকাশ পেয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে মুসলিম নারীরা হেনস্তার শিকার হচ্ছেন। ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান জোসে বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন মুসলিম ছাত্রী পুলিশকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্কিং গ্যারেজ এলাকায় দুর্বৃত্তরা পেছন থেকে তাকে হামলা করে। একপর্যায়ে তার হিজাব টেনে খুলে ফেলে এক দুর্বৃত্ত। তারপর তাকে জোরে ধাক্কা দেয় মাটি ফেলে দেয়। আরেকটি ঘটনায় পুলিশের মুখপাত্র রোনাল্ড ব্রোসার্ড বলেন, সানডিয়াগো স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দুর্বৃত্ত এক মুসলিম নারীর সঙ্গে তর্ক শুরু করে দেয়। একপর্যায়ে ওই নারীকে তারা নাজেহাল করেন। পরে ওই নারীর গাড়ি চুরি করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। আক্রমণের সময় ওই নারীর পার্সও খোয়া যায় বলে পুলিশ জানায়। ফাহিম নিজাম (১৯) নামে এক বাংলাদেশি কলেজছাত্রীও হেইট ক্রাইমের শিকার হয়েছেন। ফাহিমা জানান, তিনি বাসে করে ম্যানহাটনে হান্টার কলেজে যাচ্ছিলেন। বাসেই দুইজন শেতাঙ্গ আমেরিকান (স্বামী-স্ত্রী) তার কাছে এসে তাকে চিৎকার করে বলতে থাকে তার মাথা থেকে হিজাব খুলে ফেলার জন্য। তারা ফাহিমার সঙ্গে চিৎকার-চেঁচামেচি করতে থাকে। বলতে থাকে, মাথা থেকে বিরক্তিকর এই জিনিস খুলে ফেল। গত শনিবার জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের এক মুসলিম শিক্ষিকা মাইরা তেলিকে হুমকি দিয়ে একটি চিঠি দেয়া হয়। পরিচয় গোপন করে লেখা চিঠিটিতে দেখা যায়, মুসলিম ওই নারীকে বলা হচ্ছে, আপনি স্কুলে যে হিজাবটি পরে আসেন তা আজ থেকে বন্ধ। এখন আপনি হিজাবটিকে ফাঁসির রশি বানিয়ে তাতে ঝুলে পড়ুন। ট্রাম্পের নির্বাচনী সস্নোগান ‘মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন’ দিয়ে চিঠি শেষ করা হয়। মাইরা তেলি তার শ্রেণিকক্ষে এই চিঠি পান। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে চিঠিটা পোস্ট করেন তিনি।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।