আমি নিতে নয় দিতে এসেছি, এমপি নয় সেবক হতে এসেছি

810

দর্শনায় আ.লীগের কর্মি সমাবেশ মূহুর্তেই মহাসমাবেশে পরিণত : প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক/দর্শনা অফিস: বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে ও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। চুয়াডাঙ্গা-২ আসন এলাকার উন্নয়নে আমি আপনাদের পাশে থেকে কাজ করতে চাই। এই এলাকার মানুষের আমি নেতা হতে আসিনি, আমি আপনাদের সেবক হতে এসেছি। আমি নিতে নয়, দিতে এসেছি। আমার কোন চাহিদা নাই, আমি এমপি হয়ে অন্যের মত নিজের আখের গোছাতে চাই না। কারণ আল্লাহ আমাকে আপনাদের দোয়ায় অনেক ধণ-সম্পত্তি দিয়েছেন। বিগত দিনে যারা এই আসন থেকে এমপি হয়েছেন, তারা এই এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের কল্যাণে কাজ করেনি। বরং এই অঞ্চল থেকে কোটি কোটি টাকা আয় করে ঢাকার বুকে সম্পদের পাহাড় গড়েছে। নির্বাচিত এমপি এবং তার স্বজনরা বৈধ-অবৈধ দেখেননি, লুটপাটের রাজনীতি করে তারা শুধু নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন করেছেন এবং এখনো পর্যন্ত জনগণের রক্ত চুষে খাচ্ছে। আমি নজরুল মল্লিক আপনাদের কথা দিচ্ছি, আমার নেত্রীর নৌকার বিজয়ে আমার পাশে থাকলে এই অঞ্চলে উন্নয়নের জোয়ার বইয়ে দিতে পারবো ইনশাল্লাহ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় দর্শনা বাসস্ট্যান্ড চত্বরে পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিশাল কর্মি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি নজরুল মল্লিক।
এসময় তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে আরো বলেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে আ.লীগ সরকারের কোন বিকল্প নেই। আজকের সরকার বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিচ্ছে। সার, ডিজেলসহ যে কোন কৃষিপণ্য নিতে কাউকে লাইনে দাঁড়াতে হয় না। কারণ মানুষের দোঁরগোড়ায় আওয়ামী লীগ সরকার সেবা পৌঁছেছে। এই ১০ টাকা কেজি চাউল দেওয়াসহ গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণ, কৃষিতে ভর্তুকী, বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, মাতৃকালীন ভাতা, ভিজিএফ, ভিজিডি, চিকিৎসা ব্যবস্থা, ভিক্ষুক মুক্তকরণ, মানুষের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি, রিজার্ভ বৃদ্ধি, চাকুরীজীবিদের সুযোগ সুবিধায় বাস্তবিক উন্নয়ন সাধন করেছেন। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আ.লীগ সরকারের বিকল্প নেই।
দর্শনা পৌর এলাকার শ্যামপুর ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হানিফ মল্লিকের সভাপতিত্বে সমাবেশ শুরু হয় বিকাল ৪টায়। সমাবেশ শুরু হওয়ার আগে দুপুর থেকেই দামুড়হুদা ও জীবননগর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রাম-গঞ্জ থেকে ট্রাক, মাইক্রোবাস, লেগুনা, মোটরসাইকেল, আলমসাধু ও নসিমন-করিমন এমনকি ভ্যানযোগে হাজার হাজার নেতাকর্মি দর্শনা শহরে এসে পৌঁছায়। এরপর এসব নেতাকর্মিরা উৎসবমূখর পরিবেশে নানা বাদ্য বাজিয়ে খন্ড খন্ড মিছিল সহকারে বাসস্ট্যান্ড চত্বরের সভাস্থলে জমায়েত হয়। বিকাল ৪টার পর থেকে শুরু হয় বিভিন্নপর্যায়ের স্থানীয় নেতাদের বক্তব্যের পালা। এরপর বিকাল ৫টায় উন্নয়নের স্বপ্নে বিভোর চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের গণমানুষের ত্যাগী নেতা বিশিষ্ট সমাজসেবক তরুণ শিল্পপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন ও জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপির আর্শিবাদপুষ্ঠ ও ¯েœহাস্পদ জননেতা নজরুল মল্লিক সমাবেশস্থলে উপস্থিত হলে হাজার হাজার নেতা কর্মি মূহুর্মুহু করতালিতে তাদের নেতাকে অভিন্দন জানান। এসময় তিনি হাত নেড়ে নেতাকর্মীদের অভিন্দনে অভিনন্দন জানান।
কর্মি সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক সহিদুল হক, জীবননগর উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খলিলুর রহমান, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক এ্যাড. আবু তালেব, জীবননগর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক কাজী শামসুর রহমান চঞ্চল, কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা ডা. ফজলুল হক, কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন আ.লীগের বিশিষ্ট নেতা তরিকুল ইসলাম, দর্শনা পৌর যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম হুকুম আলী, মারুফ হোসেন, ওহাব, কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক হেলাল উদ্দীন, কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান বদ্দী, সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুজ্জোহা মাষ্টার, হাসাদাহ ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা আবদুল খালেক মাষ্টার, জীবননগর বাঁকা ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা শাহিনুর মাষ্টার, নাটুদাহ ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা ইয়াসনবী তরফদার, যুবলীগ নেতা হযরত আলী, আশাদুল হক, কুদ্দস মেম্বর, আ.সালাম, মান্নান, কামরুল, আমজাদ মেম্বর, তোরাব, রফিকুল, রমজান, হাবিবুর, জাহিদুল, হামিদুল, রকেট, খাজা, সীমান্ত ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম, বদিউজ্জামান বদি, রমজান, মজনু, মেম্বর, সাইদুল, বুলবুল, জহিরুল, লিয়াকত, কুড়ুলগাছি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.খালেক, মুস্তাইন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমান, কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা আ.সালাম, মজিদ, আনছার, কালু টেংরা, আব্দুল খালেক, সাইফুল, নাটুদাহ ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি, মোশারফ, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জসীম, কাদের, আতিয়ার, সুরত আলী, মতিয়ার, সীমান্ত ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শাহাবুল, জীবননগর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল, পারকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা তেঁতুল, নাটুদাহ ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মিলন, ফারুক, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক সহিদুল মালিথা, আ.হাকিম, সাখাওয়াৎ, সাইফুল আজম হারুন, খালিদ, সোহেল রানা, মমিন, তুহিন, ফারুক, সাকিব, কাদের, মতিয়ার রহমান প্রমূখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগ নেতা সাজেদুল বিশ্বাস মিঠু।