চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ২৩ ডিসেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আবারও দ্রুততম মানব মেজবাহ আহমেদ

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ২৩, ২০১৬ ২:৩২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

r

খেলাধুলা ডেস্ক: টানা তৃতীয়বারের মতো জাতীয় আসরে (বাংলাদেশ গেমস ও সামার অ্যাথলেটিকসসহ পাঁচ বার ) দেশের দ্রুততম মানব হয়েছেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর মেজবাহ আহমেদ। জাতীয় অ্যাথলেটিকসে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে গতবারের চেয়ে বেশি সময় নিয়ে দৌড় শেষ করেছেন নৌবাহিনীর এ অ্যাথলেট। বৃহস্পতিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ১০০ মিটারে ১০ দশমিক ৬৩ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন মেজবাহ। গতবার ১০ দশমিক ৬০ সেকেন্ড সময় নিয়েছিলেন তিনি।  ১০০ মিটার স্প্রিন্টে এবার চমক দেখিয়েছেন মেজবাহরই সতীর্থ এমএ রউফ। ১০ দশমিক ৭০ সেকেন্ড সময় নিয়ে তিনি দ্বিতীয় হয়েছে। ১০ দশমিক ৭৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয় হয়েছেন শরীফুল ইসলাম। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ লড়াইয়ের পর মুকুট ধরে রাখতে পেরে খুশি মেজবাহ।  ২০১৩ সালে বাংলাদেশ গেমসে সোনা জেতা মেজবাহ ২০১৪ সালে অ্যাথলেটিকসের সামার মিটেও সেরা হন। ওই বছরই জাতীয় অ্যাথলেটিকসে প্রথম দ্রুততম মানবের মুকুট পরেন তিনি। গত এসএ গেমসের হিটে ১০ দশমিক ৭২ সেকেন্ড তার অফিশিয়াল সেরা টাইমিং। ব্রাজিল অলিম্পিকে দৌড় শেষ করেছিলেন ১১ দশমিক ৩৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে। শেষ ১৫ মিটারের আগ পর্যন্ত মেজবাহ-রউফ ছিলেন সমানে সমান। কিন্তু পরে আর পারেননি রউফ। তবে প্রথমবার প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্টের ট্র্যাকে নেমে মেজবাহকে টেক্কা দেওয়া এই অ্যাথলেট জানালেন অভিজ্ঞতার কমতির কারণে হেরেছেন তিনি।  জাতীয় অ্যাথলেটিকসের প্রথম দিনে মেজবাহ-রউফদের আলো ছড়ানোর পাশাপাশি পুরুষদের ১১০ মিটার হার্ডলসে ১৪ দশমিক ২১ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মজিবুর রহমান। মেয়েদের ১০০ মিটার হার্ডলসে প্রথম হয়েছেন একই দলের জেসমিন আক্তার (১৪ দশমিক ৮০ সেকেন্ড)। পুরুষদের এক হাজার ৫০০ মিটার দৌড়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের খন্দকার কিবরিয়া (৪ মিনিট ১ দশমিক ৯০ সেকেন্ড) ও মেয়েদের বিভাগে সেনাবাহিনীর সুমী আক্তার (৫ মিনিট ১৩ দশমিক ০৩ সেকেন্ড) প্রথম হয়েছেন। ২০ কিলোমিটার হাটায় এক ঘণ্টা ৩৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে প্রথম হয়েছেন সেনাবাহিনীর মোহাম্মদ রাজু।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।