আবারও আনন্দমেলা উপস্থাপনায় ফেরদৌস-পূর্ণিমা

32

সমীকরণ প্রতিবেদন:
ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী ফেরদৌস ও পূর্ণিমা অভিনয়ের পাশাপাশি উপস্থাপনায়ও সুনাম কুড়িয়েছেন। আর তাই তো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে প্রায়ই মাইক্রোফোন হাতে দেখা যায় তাদের। দুজনের উপস্থাপনা দর্শক-শ্রোতারা বেশ উপভোগও করেন। ফেরদৌস-পূর্ণিমা জুটি বেঁধে ২০১৮ সালে উপস্থাপনা করেন বিটিভির ঈদের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘আনন্দমেলা’। তিন বছর পর আবারও বিটিভির ঈদ ‘আনন্দমেলা’ উপস্থাপনা করলেন এই তারকা জুটি। ৩মে (সোমবার) বিটিভির নিজস্ব স্টুডিওতে অনুষ্ঠানটি ধারণ করা হয়। যেখানে কথার চমক দিয়ে মাতিয়ে দিয়েছেন নায়ক ফেরদৌস আর নায়িকা পূর্ণিমা।
পূর্ণিমা বলেন, ‘২০১৮ সালে ফেরদৌস ভাই আর আমি প্রথম বিটিভির আনন্দমেলা উপস্থাপনা করি। সে অনুষ্ঠানে একটি গান করেছিলেন প্রয়াত কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। দিনটির কথা কখনো ভুলব না। এবারের আয়োজনও বেশ জমকালো হয়েছে। করোনার মধ্যেও আমরা চেষ্টা করেছি নিজেদের সুরক্ষা দিয়ে ভালোভাবে অনুষ্ঠানটি করতে।’ জানা গেছে, বিটিভির দর্শকপ্রিয় এ অনুষ্ঠান সাজানো হয়েছে নানা আয়োজনে। এতে বিশেষ পরিবেশনা নিয়ে হাজির হয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস ও ছোট পর্দার তারকা মেহজাবীন চৌধুরী। প্রয়াত অভিনেত্রী কবরীর স্মরণে তারই সিনেমার কালজয়ী গান ‘সে যে কেন এল না’ পরিবেশন করেছেন অভিনেত্রী তারিন। দুই বাংলার ছয় শিল্পী মিলে করেছেন একটি বিশেষ গান। যা ভিডিও আকারে দেখানো হবে। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন এপার বাংলার তপন চৌধুরী, কুমার বিশ্বজিৎ ও চন্দন সিনহা এবং ওপার বাংলার রাঘব চ্যাটার্জি, জয় সরকার ও উষা উত্থুপ। কবির বকুলের কথায় এটির সুর-সংগীতায়োজন করেছেন ইমন চৌধুরী।
এছাড়া অনুষ্ঠানে ‘যতনে রাখিব’ শিরোনামে একটি গানে পারফরমেন্স করেছেন ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ। গানটিতে তার সঙ্গে নেচেছেন বেশ কয়েকজন নৃত্যশিল্পী। যার কোরিওগ্রাফি করেছেন ইভান শাহরিয়ার সোহাগ। থাকবে সংগীতশিল্পী রাজীব চৌধুরীর একটি গান, শিবলী-নিপার নাচসহ আরও নানা আয়োজন। বিটিভির ঈদ ‘আনন্দমেলা’ প্রযোজনা করেছেন মাহমুদা আক্তার। প্রচারিত হবে ঈদের দিন রাত ১০টার সংবাদের পর।