চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আপন ভাতিজাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১ ৮:৫৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

জীবননগরে সাবেক সেনা কর্মকর্তা মুজিবুর রহমানের কাণ্ড
সমীকরণ প্রতিবেদক:
জীবননগরে ১৭ বছরের এক কিশোরীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে আপন চাচার বিরুদ্ধে। গত ২৭ আগস্ট জীবননগর উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের পেয়ারতলা মোল্লাপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ওই কিশোরী স্থানীয় শহিদুল হকের মেয়ে ও জীবননগর সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর মা জীবননগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর মা রানী খাতুন অভিযোগ করে বলেন, ২০১৭ সালে ওই কিশোরী নিজ বাড়ি পেয়ারাতলায় থাকত। সে সময় ওই কিশোরী ৮ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করত। ওই সময় কিশোরী পারিবারিক কাজে তার আপন চাচা জীবননগর বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মার্সেল শো-রুমের মালিক, জাতীয় পার্টির জীবননগর উপজেলা শাখার সভাপতি সাবেক সেনা সদস্য অনারারি লে. (অবঃ) মুজিবুর রহমানের (৬৫) বাড়িতে যায়। এসময় তার চাচা মুজিবুর রহমান জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। ওই কিশোরী যাতে কাউকে বিষয়টি না বলে, সে কারণে তাকে ভয়-ভীতি ও হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিলেন মুজিবুর রহমান। ঘটনাটি জানাজানি হলে পারিবারিকভাবে বিষয়টি মীমাংশা করা হয় এবং তিনি ক্ষমা চেয়ে পার পান। পরবর্তীতে ওই কিশোরী মায়ের সাথে ঢাকাতে চলে যায় এবং সেখানে ঢাকা মনিরামপুর মডেল হাইস্কুলে ভর্তি হয়। ঢাকা থেকে এসএসসি পাশ করে ২০২১ সালে জীবননগর সরকারি আদর্শ মহিলা ডিগ্রি কলেজে ভর্তি হয়।
ঘটনা ২০১৭ সালে শেষ হলেও ওই কিশোরীর দিকে বরাবর নজর ছিল ওই সেনা সদস্যের। তাই আবারও গত ২৭ আগস্ট সন্ধ্যায় পাশের বাড়িতে মেয়েটি বেড়াতে গেলে মুজিবুর রহমান ওই কিশোরীকে মুখ চেপে বাড়ির মধ্যে নেওয়ার চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে ওই কিশোরী চিৎকার করলে মুজিবুর রহমান তাকে ছেড়ে দিয়ে নিজের বাড়ির মধ্যে চলে যায়। মেয়েটি বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানালে তাঁরা সঠিক বিচারের জন্য স্থানীয় নেতা-কর্মীদের নিকট অভিযোগ করেন। অভিযোগ করার পর থেকে কিশোরীসহ তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রতিনিয়ত মিথ্যা মামলা ও হত্যার হুমকি প্রদান করছেন বলে অভিযোগ করেন কিশোরীর মা রানী খাতুন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের দিকে মুজিবুর রহমান তাঁর আপন ভাগ্নের বউকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করেন। তখনও তিনি মাফ চেয়ে পার পেয়ে যান।
ওই কিশোরীর মা রানী খাতুন আরও অভিযোগ করে বলেন, ‘মুজিবুর রহমান একজন প্রভাবশালী। সে টাকা দিয়ে সবকিছু করতে পারে। আমার মেয়ের এত বড় ক্ষতি করল, তারপরও সে আমার স্বামীকে প্রতিনিয়ত ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে। যাতে আমরা কোনো অভিযোগ না করি, সে জন্য উল্টো আমাদের মা-ছেলে ও মেয়ের নামে থানায় মিথ্যা জিডি করেছে। অথচ ন্যায়বিচারের জন্য আমরা বিভিন্ন মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। অবশেষে বাধ্য হয়ে এবং জীবনের নিরাপত্তার জন্য জীবননগর থানায় অভিযোগ করেছি। আমরা এ ঘটনার সঠিক বিচার চাই।’
ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বলেন, ‘২০১৭ সালে আমার চাচা মুজিবুর রহমানের বাড়িতে গেলে সে আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য ভয়-ভীতি দেখায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে আমরা ঢাকায় চলে যায়। এরপর আবার গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসলে গত ২৭ আগস্ট সে আবার আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে।’
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সাবেক সেনা সদস্য অনারারি লে. (অব.) মুজিবুর রহমান বলেন, ‘আমি কোনো ধর্ষণ করিনি। সে আমার ভাইয়ের মেয়ে মানে আমার মেয়ে। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমাকে সমাজে হেয়পতিপন্ন করার জন্য একটি মহল এ ধরনের জঘন্য কথাবার্তা বলে বেড়াচ্ছে।’
মনোহরপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার রিপন হোসেন বলেন, ‘পেয়ারাতলা মোল্লাপাড়ায় যে ঘটনা ঘটেছে, এটা আমি লোকমুখে শুনেছি। তাছাড়া দুই পরিবারের কেউ আমাকে জানায়নি।’
জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, পেয়ারাতলা মোল্লাপাড়ায় শ্লীলতাহানির অভিযোগ তুলে এক নারী জীবননগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে, তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।