আজ জেলা পরিষদ নির্বাচন : ভোটার চুয়াডাঙ্গায় ৫২৮ ও মেহেরপুরে ২৬৯ নির্বাচনকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী

346

dfg

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ জেলা পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে প্রশাসন। চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরের ১৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ভোটারদের নিরাপত্তার জন্য একটি করে এসআই, এএসআই, কমপক্ষে ৩ জন করে পুলিশ সদস্য ও ১৭ জন করে আনছার সদস্য নিয়োজিত থাকবে। কোন কোন কেন্দ্রে ৩দিনের অধিক পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার জন্য অবস্থান করবে। এছাড়া মেহেরপুরে ৬৩ জন্য নারী ভোটারের নিরাপত্তার জন্য নিয়োজিত থাকবে ১০৫ জন নারী আনছার সদস্য। মেহেরপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৫টি কেন্দ্রের মধ্যে সাতটি কেন্দ্রের প্রত্যেকটি ১৩জন করে ভোটারের জন্য নিরাপত্তায় ২৩জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বাকি আটটি কেন্দ্রের মধ্যে দুটিতে ১৪জন করে, একটিতে ১৬জন, দুটিতে ২৬জন, দুটিতে ২৭জন ও একটিতে ২৮জন ভোটার রয়েছে। জেলা নির্বাচন ও পুলিশ সুপারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মেহেরপুরে ১৮ ইউনিয়ন পরিষদ ও দুটি পৌরসভার মিলে জেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছেন ২৬৯। ১৫টি ওযার্ডের জন্য ১৫টি কেন্দ্রে নিরাপত্তায় মোট ৪৯৫ জন আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকছে। সেখানে পুলিশ ২৪০ জন। আনসার সদস্য ২৫৫ জন। আরোও থাকছে ১০ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সারাদেশের মতো মেহেরপুরেও পুরো জেলাকে ১৫টি ওয়ার্ডে ভাগ করা হয়েছে। জেলায় মোট ইউনিয়ন রয়েছে ১৮টি আর পৌরসভার দুটি। সকাল ৯টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হবে চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত ১৫টি কেন্দ্রের ৩০টি বুথে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নির্বাচনের নিরাপত্তার বিষয়ে চুয়াডাঙ্গার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন জানান, জেলা পরিষদ নির্বাচনে সার্বিক পরিস্থিতি পুলিশের অনুকূলে রয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে আনসার-পুলিশ সমন্বয়ে টিম থাকবে। এছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে একটি মোবাইল পার্টি, একটি কেন্দীয় পার্টি এবং একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে। মোবাইল পার্টি একজন ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে থাকবে। এছাড়া ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে দুই জন পুলিশ সদস্য সার্বক্ষণিক থাকবে। কেন্দ্রের আশেপাশে বহিরাগতদের প্রবেশ এড়াতে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে।