চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ২৫ ডিসেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আজ খ্রীষ্টান ধর্মালম্বীদের বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুভ বড়দিন গীর্জাগুলো সেজেছে বর্নিল সাজে

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬ ২:৪২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

1482588772

সমীকরণ ডেস্ক: শুভ বড়দিন আজ। খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। খ্রিষ্ট ধর্মের প্রবর্তক যিশু খ্রিষ্ট এই দিনে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে বেথেলহেমে জন্মগ্রহণ করেন। খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, মানবজাতিকে সুপথ প্রদর্শন, সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করা এবং সৃষ্টিকর্তার মহিমা প্রচারের জন্য যিশু জন্ম নিয়েছিলেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের খ্রিষ্টান সমপ্রদায় আজ যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উৎসবের মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করবেন। দিবসটি উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। দেশের সব গির্জা, অভিজাত হোটেল ও স্থাপনাদিতে আলোকসজ্জা আর ফুলে ফুলে সাজানো হয়েছে। একই সঙ্গে সাজানো হয়েছে ‘ক্রিসমাস ট্রি’। এছাড়া হোটেলগুলোতে বড়দিনের আয়োজনে থাকছে দেশি-বিদেশি নানা ধরনের খাবার, ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের কেক। থাকবে শিশুদের জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, জাদু প্রদর্শনী। ঢাকা শহরের ৪০টি গির্জার অধিকাংশেই থাকছে শিশুদের প্রিয় ‘সান্তাক্লজ’। তিনি শিশুদের মাঝে উপহারসামগ্রী বিতরণ করবেন। বিভিন্ন গির্জার ভেতর ও বাইরে তৈরি করা হয়েছে যিশুর জন্ম-ইতিহাসভিত্তিক ‘গোশালা’। বেথেলহেমের গরিব কাঠুরের গোয়ালঘরে যিশু খ্রিষ্টের জন্ম এ বিশ্বাস থেকে গোশালার প্রতিকৃতিকে গুরুত্ব দেয়া হয়। এদিকে প্রতিটি গির্জায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। র‌্যাব-পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে। বড়দিন উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে বাংলাদেশ খ্রিষ্টান অ্যাসোসিয়েশন। এদিকে বড়দিন উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের সদস্যদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

কার্পাসডাঙ্গা অফিস জানিয়েছে, আজ ২৫ ডিসেম্বর যীশু খ্রীষ্টের জন্মদিন। আর এই দিনটি খ্রীষ্ট ধর্মাবল্মীদের সবচাইতে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুভ বড়দিন হিসাবে পালন করা খ্রীষ্টান সম্প্রাদায়ের লোকজন। কেক কেটে যীশু খ্রীষ্টের জন্মদিনের আনুষ্ঠানিকতা ও প্রার্থনার মাধ্যমে তা পালন করে। বড় দিন উপলক্ষে দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা মিশন ধর্ম পল্লী, বাঘাডাঙ্গা মিশন ধর্মপল্লী,  মুজিবনগর উপজেলার ভবেরপাড়া মিশন ধর্মপল্লী, বল্লভপুর মিশন ধর্ম পল্লী, রতনপুর মিশন ধর্মপল্লীর প্রতিটি বাড়ীরর গেট ও বাড়ীতে সাজানো হয়েছে বাহাড়ী রংয়ের আলোকসজ্জা। গীর্জাগুলি সাজানো হয়েছে বেলুন, ফুল, লাইটিংসহ বিভিন্ন উপকরন দিয়ে। মিশন পল্লীতে চলছে উৎসবের এক বিশাল আমেজ। গোশালা গুলো সাজানো হয়েছে যীশু খ্রীষ্টের, মা মারিয়াসহ মূর্তি দিয়ে। বড় দিন উপলক্ষে খ্রীষ্টান পল্লী গুলো আলোকসজ্জায় ঝলমলে হয়ে উঠেছে।

মেহেরপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ২৫ ডিসেম্বর বড়দিন। খ্রীষ্টিয় ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। দিনটিকে ঘিরে গীর্জাগুলোকে সাজানো হচ্ছে নানা উপকরণ দিয়ে। ঈশ্বরের দয়া প্রর্থণা  ও সন্ত্রাস মুক্ত দেশ গড়ার জন্য গীর্জায় গীর্জায় প্রার্থণা করবেন তারা। মেহেরপুরে সকল ধর্মের মানুষ মিলেমিশে দিনটিকে উদ্যাপন করবেন বলে মনে করছেন পুরোহিতরা। ২৫ ডিসেম্বর গরিবের গোয়াল ঘরে মা মরিয়মের গর্ভে জন্ম নেয় ঈশা মসিহ। তাঁর আগমনের এ দিনটি নানা উৎসবের মধ্য দিয়ে পালন করে থাকেন খ্রিষ্টীয় ধর্মাবলম্বীরা। মেহেরপুরের মুজিবনগর ও গাংনীর বিভিন্ন খ্রীষ্টান পল্লীতে ১ডিসেম্বর থেকে তোলা হয়েছে তারা ও  বিভিন্ন স্থানে তৈরি করা হয়েছে গোশালা। রাস্তায় রাস্তায় নির্মাণ করা হয়েছে তোরন। এছাড়াও যুবক যুবতিরা কীর্তনের মধ্য দিয়ে খ্রীষ্টের বাণী সবার মাঝে ছড়িয়ে দেবেন। ২৫ ডিসেম্বর রাত থেকে গির্জায় গির্জায় প্রার্থণার মাধ্যমে বড় দিনের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। এছাড়াও আগামী বছরটিকে দয়ার বছর হিসেবে ঘোষণা করেছেন পোপ। সেই লক্ষে ইশ্বরের কাছে দয়া প্রার্থনা ও সুখি সমৃদ্ধ দেশ গড়ার লক্ষে ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করবেন তারা। এছাড়াও আলোচনা করা হবে আধ্যাতিক বিভিন্ন বিষয়ের উপর। দিনটিকে ঘিরে খ্রীষ্টীয় ধর্মাবলম্বীরা গির্জায় গির্জায় প্রার্থণাসহ বিভিন্ন স্থানে নির্মিত গোশালাগুলো পরিদর্শনের মাধ্যমে প্রার্থণা করবেন। বিগত দিনের সকল ভেদাভেদ ভূলে একে অপরের সাথে মিশে তৈরি করবেন ভ্রাতৃত্বের দৃঢ় বন্ধন। সবাই আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে দিনটি পার করবেন বলে জানালেন দিপক মন্ডল। লিজা সরকার বলেন, উৎসব উপলক্ষে আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে যাওয়া, বন্ধু-বান্ধবের সাথে দেখা করা, সকলে মিলে মেলায় বেড়াতে যাওয়াসহ আনন্দ ঘন পরিবেশের মধ্য দিয়ে দিনটি পার করবেন তারা। ইম্মানুয়েল ক্যাথলিক চার্চের ফাদার ডোমেনিক জানান, আগামী বছরটি পোপ দয়ার বছর হিসেবে ঘোষণা করছেন। ইশ্বরের দয়া প্রাপ্তির জন্য প্রার্থণা করবেন তারা। রাত ১২টা থেকে ইশ্বরের কাছে প্রার্থণার মধ্য দিয়ে শুরু হবে বড়দিনের কার্যক্রম। এছাড়াও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ্যে ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করা হবে। পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান জানান, বড়দিনকে ঘিরে খ্রীষ্টিয়ধর্মীয় নেতাদের সাথে আলোচনা করা হয়েছে। সার্বক্ষনিত তাদের নিরাপত্তা প্রদান করা হবে। তাছাড়া সাদা পোশাকেও পুলিশ কাজ করবে। বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারি।

মুজিবনগর অফিস জানিয়েছে, শুভ বড়দিন পালন উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছে কুষ্টিয়া ডায়োসিস বল্লভপুর ডিনারী সম্পাদক ও বাগোয়ান ইউপি ৬নং ওয়ার্ড সদস্য মি: সংকর বিশ্বাস। উক্ত মতবিনিময় সভা গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় সংকর বিশ্বাসের অফিস কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাগোয়ান ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মি: সুজিত মল্লিক, বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ মুজিবনগর উপজেলা শাখার যুগ্ম আহব্বায়ক মি: বিকাশ বিশ্বাস, রবিন মল্লিক, মধু সরকার প্রমূখ। সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকার মুজিবনগর প্রতিনিধি শেখ শফি, দৈনিক সময়ের সমীকরণ পত্রিকার মুজিবনগর প্রতিনিধি হাসান মোস্তাফিজুর রহমান (শের খাঁন),  দৈনিক আমাদের সংবাদ পত্রিকার মুজিবনগর ব্যুরো প্রধান সোহাগ মন্ডল, আকাশ খবর পত্রিকার মুজিবনগর ব্যুরো প্রধান রেজাউল করিম রেজা ও মেহেরপুর নিউজের মুজিবনগর প্রতিনিধি শাকিল রেজা।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।