চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ৩০ আগস্ট ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আগ্নেয়াস্ত্র বোমা তৈরীর সরঞ্জামসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৮ সদস্য আটক

সমীকরণ প্রতিবেদন
আগস্ট ৩০, ২০১৭ ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

জীবননগরের আন্দুলবাড়িয়ায় ডাকাতি চেষ্টাকারীদের ধরতে চুয়াডাঙ্গা ডিবি’র সফল অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক: জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া করচাডাঙ্গা লাইনপাড়া এলাকায় ডাকাতি চেষ্টা ছত্রভঙ্গের ২৪ ঘন্টার মাথায় চুয়াডাঙ্গা সদরের হিজলগাড়ী বাজারের সংগ্রাম হোটেলে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৮সদস্যকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি পুলিশ)’র একটি দল। ডাকাতদলের একজনের দেহতল্লাশী করে ৬-বোরের ১টি রিভলবার ও অন্যদের কাছ থেকে গান পাউডার এবং বোমা তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টায় নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন।
জানা যায়, গত সোমবার রাতে জীবননগর উপজেলার করচাডাঙ্গা গ্রামে ডাকাতদের উপস্থিতির খবর পায় জেলা গোয়েন্দা বিভাগ-ডিবি। সেখানে গিয়ে ডাকাতদলের পরিকল্পনা নস্যাৎ করতে ৮-১০ রাউন্ড গুলি চালায় তারা। ওই সময় সংঘবদ্ধ ডাকাতচক্র ছত্রভঙ্গ হলেও ডিবি সদস্যরা মঙ্গলবার সারাদিন জীবননগর ও চুয়াডাঙ্গার মধ্যবর্তি হিজলগাড়ী বাজার ও তার আশপাশে গোপন অভিযান অব্যহত রাখে। এদিন সন্ধ্যার দিকে কিছু অপরিচিত লোকজন হিজলগাড়ী বাজারের সংগ্রাম হোটেলে খাওয়া-দাওয়া করছে জানতে পারে তারা। এসময় জেলা গোয়েন্দা বিভাগের ওসি নাজমুল হক, এসআই আশরাফ, এসআই ইব্রাহিম, এসআই জগদীশ, এএসআই হারুন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ওই হোটেলে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৮ সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়। আটককৃতরা হল- ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মহামায়া গ্রামের আজিবর আলীর ছেলে কোরবান আলী (৩০) ও তার সহোদর লোকমান (২৮), একই গ্রামের জামাত আলীর ছেলে তরিকুল ইসলাম (৩২), রুদ্রপুর গ্রামের আফজাল মন্ডলের ছেলে লাল চাঁদ (৩২), আশাদুলের ছেলে সোহানুর রহমান জনি (২৫), কলম আলীর ছেলে আজিজুল ইসলাম ওরফে আকিমুল ইসলাম (২৬), গোপালপুর গ্রামের মৃত এলেম মন্ডলের ছেলে আবু বকর সিদ্দিক (২৪) ও লালমনিরহাট জেলার ভাটিবাড়ী গ্রামের জামিনুর রহমানের ছেলে শহিদুল ইসলাম ওরফে সজিব (২৪)। এরপর জনতার উপস্থিতিতে চিহিৃত ডাকাত সর্দ্দার কোরবান আলীর দেহ তল্লাশী করে ৬ বোরের একটি গুলিবিহীন রিভলবার উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অন্যান্য সদস্যদের কাছে থেকে দু’কেজি কাঁচের মারবেল, ১শ’গ্রাম গান পাউডার, বোমা বানানোর চিকন সুতুলি, ৫ পিচ লাল টেপ, ৪টি টর্চ লাইট, ৮টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়ে। তাদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইন ও ডাকাতি চেষ্টা আইনে মামলা করা হবে। পুলিশ সুপার আরো বলেন, আটককৃতদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আরো নতুন তথ্য পাওয়া যেতে পারে। যার মাধ্যমে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের পুরো সিন্ডিকেটকে আটক করা সম্ভব হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।