আগুনে পুড়লো ৪টি গরু ও ২টি ছাগল

ছবি- গোয়াল ঘরে পড়ে থাকা মৃত গরু ও ছাগল

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নাটুদাহ ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের কৃষক জহিরুলের বাড়ির গোয়াল ঘরে আগুন লেগে চারটি গরু ও দু’টি ছাগলের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত (ভোর) ৩ টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আগুন নেভানোর আগেই গরু ও ছাগলগুলো পুড়ে মারা যায়। পরে দামুড়হুদা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই সব পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়।

জানা যায়, দামুড়হুদা উপজেলার নাটুদা ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের পশ্চিম পাড়ার কৃষক আলালের ছেলে জহিরুল ইসলাম মশার উপদ্রব থেকে রক্ষা পেতে প্রতিদিনের মতো গোয়াল ঘরের ভিতরে মশার কয়েল জ্বালান তিনি। কয়েলের পাশাপাশি তিনি প্রতিনিয়ত গোয়াল ঘরে খড়-বিচালির আবর্জনা দিয়ে ধোঁয়া দেন। এখান থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।।

জহিরুল জানান আগুন লেগে তার চারটি জার্সি গরু, দু’টি ছাগলসহ গোয়ালঘরটিও পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে গেছে। সবমিলে অন্তত ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।

জহিরুল আরো জানান, কৃষি জমি চাষাবাদের পাশাপাশি বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে গরু ছাগল পালন করে ৬ সদস্য নিয়ে অভাবের সংসার চালাই। গরু ও ছাগলগুলো মারা যাওয়ায় আমি একদম নিঃস্ব হয়ে গেলাম।

খবর পেয়ে সকালে দূর্ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রোকসানা মিতা। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্থ জহিরুলের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেন।

এসময় দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রোকসানা মিতা জানান, কৃষক জহিরুলের গরুগুলো পুড়ে মারা যাওয়ায় তিনি অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে গেলেন। এ অবস্থায় তার সহযোগিতা প্রয়োজন। লিখিত আবেদন করলে আমার অফিসের পক্ষে থেকে প্রযোজনীয় সকল সহযোগিতা করার চেষ্টা করবো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নাটুদাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলামসহ এলাকার গন্যমান্ন ব্যাক্তিবর্গ।