অ্যানেক্স ভবনের সামনে ভাস্কর্যটি বসানো হচ্ছে

305

নিজস্ব প্রতিবেদক: সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে নেওয়া ভাস্কর্যটি অ্যানেক্স ভবনের সামনে পুনঃস্থাপনের কাজ চলছে। শনিবার রাত ১০টা থেকে ভাস্কর্য বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। ভাস্কর মৃণাল হক এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে ভাস্কর্য পুনঃস্থাপনের কাজ তদারক করছেন।
মৃণাল হক বলেন, ‘ভাস্কর্য স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। ১৫ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যে দাঁড় করানো হয়ে যাবে।’ ছোট পিকআপে করে শনিবার রাত ১০টার দিকে ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্টের অ্যানেক্স ভবনের সামনে আনা হয়। পরে ভার উত্তোলক যন্ত্র দিয়ে পিকআপ থেকে ভাস্কর্যটি নামানো হয়। ভাস্কর্যটি পুনঃস্থাপন করতে বেশ কয়েকজন শ্রমিক কাজ করছেন। তাঁদের ঝালাইসহ বিভিন্ন কাজ করতে দেখা গেছে। অ্যানেক্স ভবনের সামনে সংবাদ সংগ্রহের জন্য কাউকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, কর্তৃপক্ষের নির্দেশ আছে। কাউকে যেতে দেওয়া যাবে না। গত বছরের শেষ দিকে এ ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে বসানো হয়। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্যটি অপসারণের দাবিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠান। বিবৃতিতে ভাস্কর্যটিকে মূর্তি হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি। এরপর থেকে ভাস্কর্যটি সরানোর দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে আসছিল সংগঠনটি। হেফাজতে ইসলামসহ ধর্মভিত্তিক কয়েকটি দলের অব্যাহত দাবির মুখে গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে ভাস্কর্য সরানোর কাজ শুরু হয়। রাত চারটার দিকে ভাস্কর্যটি সরানোর কাজ শেষ হয়। ভাস্কর্যটির নির্মাতা মৃণাল হক ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে এটি সরানোর কাজ তত্ত্বাবধান করেছিলেন। সুপ্রিম কোর্টের মূল চত্বর থেকে সরানোর পর ভাস্কর্যটি ত্রিপলে মুড়িয়ে সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবনের পেছন দিকে রাখা হয়েছিল। পরে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছিলেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের নির্দেশে ভাস্কর্যটি সরানো হচ্ছে। ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্ট অ্যানেক্স ভবনসংলগ্ন জাদুঘরের সামনে স্থাপন করার ব্যাপারে প্রধান বিচারপতির কাছে মত দিয়েছেন তাঁরা।