চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৩১ মে ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অনিয়ম-দুর্নীতিতে ভরা গাংনীর এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
মে ৩১, ২০২২ ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রতিবেদক গাংনী: মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার নওদাপাড়া ও পীরতলা গ্রামে অবস্থিত এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলামের প্রতারণার শিকারের প্রতিকার চেয়ে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী-সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছেন বিদ্যালয়ে জমিদাতা মো. খাজিরুল ইসলাম। এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে জমিদাতা খাইরুল ইসলাম তার আবেদনপত্রে বলেন, এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আমার নিজ নামীয় ২০ শতক জমি দান করি। জমি দানের শর্ত ছিল আমার পরিবার থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুসারে বিদ্যালয়ে দুই জন শিক্ষক নেওয়া হবে। কিন্ত তা না করে এর মধ্যে উড়ে এসে জুড়ে বসেন বর্তমান প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম। প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে খাজিরুল ইসলাম তার আবেদনপত্রে বলেন, এই মনিরুল ইসলাম জাল শিক্ষা সনদ দিয়ে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছে। তার স্ত্রীর সনদ নিয়েও বিভিন্ন ধরনের গুঞ্জন আছে। বর্তমান প্রধান শিক্ষকের পরিবারের ৪ জন সদস্যকে চাকরি দিয়েছেন সে। এছাড়াও লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষের মাধ্যমে শিক্ষকদের নিয়োগ দিয়েছেন এই মনিরুল ইসলাম। খাজিরুল ইসলাম আরও বলেন, বর্তমান প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলামের কারণে আমার পরিবার চাকরি থেকে বঞ্চিত হয়েছে এবং ২০ শতক জমির ন্যায্য মূল্য থেকেও বঞ্চিত হচ্ছি। উক্ত ২০ শতক জমির বর্তমান বাজার মূল্য ৫০ লক্ষ টাকা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন আমি যাতে ন্যায্য বিচার পায় সেই ব্যবস্থা করতে আপনাদের সু-মর্জি হয়।

এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি আনারুল ইসলাম বাবু বলেন, বর্তমান প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনার ক্ষেত্রে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। আমি তার সব ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতির তদন্ত সাপেক্ষে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাই।

এবিষয়ে এনপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোনটি রিসিভ (গ্রহণ) করেনি।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।