অদক্ষ ট্রাক্টরে চালকদের দৌরাত্ম্যে ঘটছে দুর্ঘটনা!

10

জীবননগরে নদী পুনঃখনন কাজের মাটি বিক্রির মহোৎসব
জীবননগর অফিস:
জীবননগরে রাতের আধারে বিভিন্ন নদী-নালা খননের মাটি বিক্রির মহোৎসব শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে রয়েছে অদক্ষ ট্রাক্টর চালকদের প্রতিযোগিতা। এতে করে যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। গত ৩১ জানুয়ারি পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের করতোয়া নদী পুনঃখনন কাজ শুরু হয়। নদীর কিছু অংশ খনন করার পর দেখতে সুন্দর লাগলেও বেশ কিছু ব্যক্তি ইটভাটার মালিকদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসার উন্নয়নের নাম করে এই নদীর মাটি রাতের আধারে বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গ্রামের ছোট রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে অদক্ষ ড্রাইভার দিয়ে অবৈধ ট্রাক্টরে নদী খননের মাটি নিয়ে বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রি করা হচ্ছে। রাস্তা দিয়ে যে গতিতে ট্রাক্টর যাতায়াত করে থাকে, তাতে বাড়ি থেকে বের হওয়ায় দায় হয়ে পড়ে। শুধু তাই নয়, গাড়ির শব্দে রাতে বাড়িতে ঘুমানো যায় না। প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিয়েও কোনো লাভ হয়নি।
তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, জীবননগর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সরকারিভাবে শুরু হয়েছে মরা খাল খননের কাজ। আর এই সুযোগে ইটভাটার মালিকারা খাল খননের ঠিকাদারের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলে সেখান থেকে অল্প টাকা দিয়ে মাটি ক্রয় করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করছেন। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছেন গ্রামের সাধারণ মানুষ, ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। অকালে ঝরছে প্রাণ।
সরেজমিনে দেখা গেছে, জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের করতোয়া নদী খননের মাটি মনোহরপুর ইউনিয়নের মা-বাবা ইটভাটা এবং জীবননগর পৌরসভার সীমান্ত ইটভাটাসহ বেশ কয়েকটি ভাটায় দিন-রাত অদক্ষ ড্রাইভার দিয়ে প্রতিযোগিতামূলকভাবে মাটি আনছে। সম্পতি উপজেলার কাটাপোল গ্রামে ইট বহনকারী বালির ট্রাক্টরের চাকায় পিষ্ট হয়ে অহিদুল ইসলাম (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত ও তাঁর ৭ বছরের শিশু পুত্র ইয়াসিন গুরুতর জখম হয়। এঘটনায় ঘাতক ট্রাক্টরটি আটকসহ ট্রাক্টর মালিক আনছারের বিরুদ্ধে হত্যাসহ দুটি মামলা দায়ের করা হলেও এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত দোষীরা ধরা না পড়লেও ভোগান্তিতে আছেন ওই গ্রামের খেটে খাওয়া সাধারন মানুষ। পুলিশের ভয়ে গ্রাম ছেড়ে বিভিন্ন স্থানে মানবেতর জীবনযাপন করছে মানুষ।
৪ নম্বর সীমান্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ময়েন উদ্দিন মঈন বলেন, ‘সীমান্ত ইউনিয়নে যে মরানদী খনন করা হচ্ছে, এ বিষয়টা আমি জানি। তবে মাটি বিক্রি করার বিষয়টা আমি জানি না এবং এর সাথে কারা জড়িত, তাও বলতে পারব না।’