চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অকালেই ঝরে গেল শিশু মিমের তাজা প্রাণ!

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ৩০, ২০১৭ ৪:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দামুড়হুদা বাস্তবপুরে নব্য মোটরসাইকেল চালকের ধাক্কায়
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলার বাস্তবপুর গ্রামে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় মিম (৪) নামের এক শিশু কন্যার করুন মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে বাস্তবপুর গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। শিশু মিম দামুড়হুদা উপজেলার পারকেষ্টপুর মদনা ইউনিয়নের বাগানপাড়ার মামুনের মেয়ে।
জানা গেছে, গতকাল সকালে শিশু মিম তার মায়ের সাথে ফুফুর বাড়ি বাস্তবপুর গ্রামে যায়। বিকালে মিম ফুফুর বাড়ির সামনে খেলা করছিল। এ সময় একটি মোটরসাইকেল মিমকে স্ব-জোরে ধাক্কা দেয়। এতে মিম গুরুতর জখম হয়। পরে মিমকে উদ্ধার করে সন্ধ্যার পরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে। পরে রাত ৮ টার দিকে রাজশাহী যাবার উদ্দেশ্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল ত্যাগের পূর্বেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশু মিম। একমাত্র মেয়ে মিমকে মর্মান্তিকভাবে মৃত্যুতে তার মা-বাব যেন নির্বাক হয়ে পড়েন। কিছুতেই কন্যা হারানোর শোক সইতে পারছেনা। শিশু কন্যার মা নাজমা খাতুন ঘুরেফিরেই প্রশ্ন করছে কেন এমন হলো..? অকালে কেন ঝড়ে গেল আমার মেয়ের প্রাণ। কি দোষ করেছি খোদার কাছে। মেয়ে হারিয়ে যেন দিশেহারা হয়ে পড়েন তিনি।
শিশু কন্যাকে হারিয়ে হতবাক বাবা মামুন জানায়, আমার মেয়ে তার ফুফুর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে ছিল। একটি নব্য মোটরসাইকেল চালক আমার মেয়েকে মেরে ফেললো। কাঁদতে কাঁদতে কথা গুলো বলে বার বার মুর্ছা যাচ্ছিলেন পিতা মামুন। তিনি আরো বলেন, আমি ওই চালকের চিনিনা। তবে ওই ব্যক্তি তার বিয়ায়ের বাড়ি বাস্তবপুর গ্রামে বেড়াতে এসেছিল। এ ব্যাপারে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মসিউর রহমান বলেন, শিশু মিমের মাথায় প্রচন্ড আঘাতে কারণে মৃত্যু হয়েছে। আমরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী রেফার করেছিলাম। তবে রাজশাহী যাবার আগেই সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।