৮ চোরাকারবারির বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা : জেলহাজতে প্রেরণ

231

দর্শনার জোড়াবটতলা থেকে মার্কিন ডলার-রুপি ও মালামালসহ বিজিবি’র হাতে আটক
নিজস্ব প্রতিবেদক: দর্শনা জোড়াবটতলায় চোরাচালান বিরোধী সফল অভিযান চালিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় চালান আটকের ঘটনায় আটক ৮ চোরাকারবারির বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছে ৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ান। গতকাল সোমবার সকালে তাদেরকে মামলাসহ দামুড়হুদা থানায় সোপর্দ করা হয়। পরে আসামীদের আদালতে প্রেরণ করা হলে বিজ্ঞ বিচারক তাদেরকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
গত রোববার সকালে দর্শনার জোড়াবটতলা নামকস্থান হতে ৭টি লাগেজ ও ৪টি স্কুল ব্যাগসহ ৮ চোরাকারবারীকে আটক করে ৬ বিজিবি। লাগেজ ও ব্যাগ তল্লাশী করে ২ লাখ ১৬ হাজার ২০০ মার্কিন/ইউএসএ ডলার; বাংলাদেশি টাকায় ১ কোটি ৭৯ লক্ষ ৮৩ হাজার ৫১৬ টাকা, ৫ হাজার ৯০০ ভারতীয় রুপি; যা বাংলাদেশী নগদ ৩৯ হাজার ৭৬০ টাকা ও ৪ লক্ষ ৭৮ হাজার ৬৪০ টাকা মূল্যের ভারতীয় মালামাল উদ্ধার করা হয়।
আটকৃতরা হলো- শরিয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার ইশ্বরকাঠী গ্রামের মো. হাবিবুর রহমানের ছেলে মিজানুর রহমান (৪৮), মাদারীপুর জেলা সদরের কেন্দুয়া শ্রীনাদি গ্রামের বাদশা মাতাব্বরের ছেলে উজ্জ্বল আহমেদ (৩১), ঢাকা শ্যামপুরের হাবিবুর রহমানের ছেলে আনিসুর রহমান (২৯), একই এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে আতিকুল রহমান(৩১), মাদারীপুর শিবচর উপজেলার জাদুয়ারচর গ্রামের মৃত সামাদ মুন্সির ছেলে আব্দুর রাজ্জাক(৪৫), গোপালগঞ্জ মুকসুদপুর উপজেলার বিশ্বম্ভবদী গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে হেদায়েত আলী(৪০), মাদারীপুর রাজৈর শংকরদী গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুল হান্নান(৩৮) ও লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার বাহাদুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে আল আমিন(২৮)। বিজিবি সূত্রে জানা যায় তারা দীর্ঘদিন যাবত অর্থ পাচার এবং চোরাচালানের সাথে জড়িত।
অবৈধ পথে চোরাচালান ও বৈদেশিক মুদ্রা পাচারের অপরাধে তাদের বিরুদ্ধে দামুড়হুদা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন নায়েক রাসেল শিকদার। মামলা নং- ২৯; বিশেষ ক্ষমতা আইন- ১৯৭৪ এর ২৫ বি (০১) (বি) (০২)/২৫ডি ধারায় মামলাটি রুজু করা হয়।