৩ ইস্যু নিয়ে মার্কিন কর্মকর্তার সঙ্গে বিএনপির বৈঠক

113

সমীকরণ প্রতিবেদন:
সিটি নির্বাচনে থাকা না থাকা, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সরকার বিরোধী আন্দোলন এ তিন ইস্যু নিয়ে মার্কিন কর্মকর্তার সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছে বিএনপি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল আউয়াল মিন্টুর গুলশানের বাসায় মার্কিন দূতাবাসের রাজনৈতিক কর্মকর্তা কাজী রুম্মান দস্তগীরের সাথে বিএনপির সিনিয়র নেতারা বৈঠক করেছেন। এতে উত্তর সিটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়ালও উপস্থিত ছিলেন। সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে হঠাৎ কেন দেশের বড় রাজনৈতিক দল বিএনপির সাথে মার্কিন কর্মকর্তারা বারবার বৈঠক করছেন এ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে বিষয়টি অনেক গুরুত্ব পাচ্ছে।
জানা গেছে, গতকাল বুধবার (২২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৮টার দিকে উধ-৬৫-৩২০ *অগক-৪৬০ নাম্বরের একটি গাড়িতে বিএনপি নেতা মিন্টুর বাসায় আসেন মার্কিন কর্মকর্তা রুম্মান। পরে সাড়ে আটটা থেকে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে প্রায় ১ ঘন্টা ৪৫ মিনিটের মতো তারা মিটিং করেন। মিটিংয়ের আলোচনায় গুরুত্ব পেয়েছে সিটি নির্বাচন, বেগম জিয়ার মুক্তি ও সরকার বিরোধী আন্দোলন। জানা যায়, উত্তর সিটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের বিরুদ্ধে নির্বাচনী হলফ নামায় তথ্য গোপনের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া ২০১৭ সালে প্যারাডাইস পেপার ক্যালেঙ্কারিতেও তার নাম ছিলো। বিষয়গুলো আমলে নিয়ে নির্বাচন কমিশন তার বিরুদ্ধে তদন্ত করছেন। প্রমাণিত হলে তার প্রার্থীতা বাতিল হতে পারে। অন্যদিকে, দুর্নীতির মামলায় দক্ষিণ সিটি বিএনপির প্রার্থী ইশারাক হোসেনের বিরুদ্ধেও অভিযোগ আমলে নিয়েছেন আদালত। এক্ষেত্রে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনিও প্রার্থীতা হারাতে পারেন। দুর্নীতি ও তথ্য গোপন ইস্যুতে বিএনপির দুই প্রার্থীই প্রার্থীতা নিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হওয়ায় বিএনপির নেতারা সিটি নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত থাকবেন কিনা এই নিয়ে দ্বিধা দন্দ্বে রয়েছেন।
এরই মধ্যে মার্কিন দূতাবাসের রাজনৈতিক কর্মকর্তা কাজী রুম্মান দস্তগীরের সাথে তারা বৈঠক করেছেন। বৈঠকে বিএনপি নেতারা মার্কিন কর্মকর্তার সাথে সিটি নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত থাকা ঠিক হবে কিনা সে বিষয়ে পরামর্শ চেয়েছেন বলে জানিয়েছেন বৈঠকে উপস্থিত থাকা একজন। তিনি বলেন, এই মূহুর্তে বিএনপির নির্বাচনে থাকা না থাকা এবং বেগম জিয়ার মুক্তি ইস্যুতে সরকারের উপর চাপ সৃষ্টির কৌশল নিয়েও আলোচনা হয়েছে। তবে কি সিদ্ধান্ত হয়েছে তা নিয়ে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। এর আগে চলতি মাসের ৯ তারিখে বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী আমেরিকান দূতাবাসে প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপী অনির্ধারিত বৈঠক করেছেন। সেখানেও সিটি নির্বাচন ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।