হিলারির জন্য সুখবর

199

36964_hilaryসমীকরণ ডেস্ক: হিলারি ক্লিনটনের জন্য সুখবর। ব্যাটলগ্রাউন্ড বা মূল লড়াইয়ের রাজ্যগুলো থেকে তার জন্য সুখবর দিচ্ছেন ভোটাররা। আগামী নির্বাচন শুরু হয়ে গেছে এসব রাজ্যে। তাতে লাখ লাখ মার্কিনি এরই মধ্যে ভোট দিয়েছেন। তাতে নর্থ ক্যারোলাইনা, নেভাদা, আরিজোনা ও ইউটাহ’র মতো রাজ্যগুলোয় ভালো করছেন ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। ২০১২ সালে এ দলটি এসব রাজ্যে যে অবস্থানে ছিল তার চেয়ে অনেকটা উন্নতি হয়েছে ডেমোক্র্যাটদের। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। একটি ডাটা কোম্পানি ক্যাটালিস্টের সঙ্গে সিএনএন অগ্রবর্তী প্রার্থী, পরামর্শক গ্রুপ, শিক্ষাবিদ ও থিংক ট্যাংকদের সঙ্গে কাজ করে। তারা এ বছর আগাম ভোটের বিস্তারিত তথ্য হাতে পেয়েছে। ক্যাটালিস্ট যে তালিকা করেছে তাতে জনসংখ্যাতত্ত্ব, নিবন্ধন তথ্যসহ দলীয় নিবন্ধন, লিঙ্গ ও বয়সের ভিত্তিতে তথ্য সাজানো হয়েছে। তাতে বোঝা যায় এরই মধ্যে কারা কারা নির্বাচনে ভোট দিয়েছে। নর্থ ক্যারোলাইনায় ২০১২ সালের তুলনায় আগাম নির্বাচনে ভোটের হার অপরিবর্তিত আছে। তবে রিপাবলিকানদের ভোট কমে গেছে প্রায় ১৪ হাজার ৫০০। ২০১২ সালের তুলনায় নেভাদায় ডেমোক্র্যাটরা কিছু ভোটে পিছিয়ে আছে। আগাম ভোটে ডেমোক্র্যাটরা বেশ এগিয়ে আছে আরিজোনায়। তবে সবচেয়ে বিস্ময়কর বিষয় হলো, রক্ষণশীল ও মারমোন সমপ্রদায় অধ্যুষিত ইউটাহতে ডেমোক্র্যাটরা তাদের অবস্থানের উন্নতি ঘটিয়েছে। সেখানে রিপাবলিকানদের সঙ্গে তাদের প্রায় সমান সমান লড়াই হচ্ছে। ২০১২ সালের এ সময়ে এ রাজ্যে আগাম ভোটে ডেমোক্রেটিকদের চেয়ে রিপাবলিকানরা এগিয়ে ছিল ২২ হাজার ভোটের ব্যবধানে। কিন্তু এ বছর শুক্রবার পর্যন্ত রিপাবলিকানরা মাত্র ৩ হাজার ৫০৯ ভোটে এগিয়ে আছে। তবে রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্পের জন্য এখন পর্যন্ত সুখবর রয়েছে আইওয়া রাজ্যে। সেখানে রিপাবলিকানদের চেয়ে ৩৮ হাজার ২৮০ জন ডেমোক্রেটিক ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এতে এ রাজ্যে রিপাবলিকানরা এগিয়ে আছে। ২০১২ সালে এই সময়ে এখানে রিপাবলিকানদের চেয়ে ডেমোক্র্যটরা এগিয়ে ছিল ৫৩ হাজার ৭১৯ ভোটে। ওহাইও রাজ্যে আগাম ভোটে ডেমোক্র্যাটরা এগিয়ে আছে। কিন্তু ২০১২ সালে তারা যতটা বেশি ভোটে এগিয়ে ছিল এবার ব্যবধান তার চেয়ে কম। এ বছর এ রাজ্যে এক লাখ ৭৯ হাজার ১৬২ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ২০১২ সালের এ সময়ের তুলনায় এ ভোট শতকরা ৬৬ ভাগ কম। সিএনএনের সর্বশেষ ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে দেখা যায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য একজন প্রার্থীকে কমপক্ষে ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট পেতে হবে। কলোরাডো ও ভার্জিনিয়াকে সঙ্গে নিয়ে সেই সংখ্যা প্রায় ছুঁই ছুঁই করছেন হিলারি। তবে এ হিসেবে আইওয়া ও ওহাইওকে ধরা হয়নি। হিলারি ক্লিনটন ফ্লোরিডা, পেনসিলভ্যানিয়া, নেভাদা ও নিউ হ্যাম্পশায়ারে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। এ রাজ্যগুলোতে মোট ইলেকটোরাল ভোট রয়েছে ৫৯টি। হিলারি ক্লিনটনের জন্য ভালো খবর রয়েছে ভার্জিনিয়া ও উইনকনসিন থেকে। এ রাজ্যগুলোয় হিলারি জনমত জরিপে অব্যাহতভাবে এগিয়ে আছেন। উইসকনসিনে এখন পর্যন্ত আগাম ভোট দেয়ার হার তিন গুণ। আগের নির্বাচনে এ সময়ে এখানে আগাম ভোট দিয়েছিলেন ৪৬ হাজার ৩৮৯ জন ভোটার। এবার সে সংখ্যা এক লাখ ৪ হাজার ১৯০। ভার্জিনিয়ায় ২০১২ সালের তুলনায় এবার ভোট পড়েছে ১৮ হাজার ৭৯টি বেশি। রিপাবলিকানপন্থি রাজ্য জর্জিয়ায় ২০১২ সালের তুলনায় আগাম ভোট পড়েছে শতকরা প্রায় ২৫ ভাগ। তবে ট্রাম্পকে পিস স্টেটে হতাশ করতে পারেন হিলারি। সেখানকার অশ্বেতাঙ্গ ভোটাররা বেশি করে সমর্থন করছেন হিলারিকে। এর বেশির ভাগই আফ্রিকান বংশোদ্ভূত মার্কিনি। তবে ২০১২ সালের তুলনায় সেখানে ভোট কিছুটা কম পড়েছে।