হঠাৎ বৃষ্টি : প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা

37

সমীকরণ প্রতিবেদন:
প্রকৃতিতে এখনও শীত আসেনি। তবে বাতাসে শীতল অনুভূতি বিরাজ করছে। শীতের এই আগমনী হাওয়ায় গতকাল শুক্রবারের ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ শীতের অনুভূতি বাড়িয়ে দেবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বাতাসের সংমিশ্রণে এদিন রাজধানীসহ অনেক এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির কারণে আগামী তিনদিন তাপমাত্রা কমবে। এরপর আবারও তাপমাত্রা বাড়তে পারে। তবে নবেম্বরের শেষ দিকে প্রকৃতিতে শীত নামবে। মধ্য ডিসেম্বরে তা জাঁকিয়ে বসতে পারে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, শনিবারও আকাশ মেঘলাসহ বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। রবিবার থেকে মেঘলাভাব কেটে আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আগামী দু’তিন দিন রাতে বেশ শীতের আমেজ থাকবে।
আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, পশ্চিমা লঘুচাপের সঙ্গে পূবালী বাতাসের সংমিশ্রণের কারণে এই কুয়াশা আর বৃষ্টি হচ্ছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। অন্য বছরের তুলনায় এবার শীতের আগমনী হাওয়া অনেকটা দেরিতে শুরু হয়েছে। আবহাওয়াবিদদের মতে সাধারণত অক্টোবরের শেষ সপ্তাহেই শীতের আমেজ শুরু হয়ে যায়। কিন্তু এবার মধ্য নম্বেরের দু’এক দিন বাদে শীতের কোন প্রভাব নেই বললেই চলে। নাতিশীতোষ্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। তবে সূর্যের তেজ কমে গেছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী বৃষ্টির কারণে আগামী তিনদিন দেশের তাপমাত্রা আরও কমতে পারে। দেশের কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ইতোমধ্যে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রীর নিচে চলে এসেছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এখন ১৩ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে এসেছে। দেশের প্রেক্ষাপটে তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস বা এর কম হলে শীতের অনুভূতি সৃষ্টি হয়। তারা জানায়, তাপমাত্রা যেভাবে কমছে তাতে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সারাদেশে শীতের আমেজ আরও বাড়বে। রাতে তাপমাত্রা আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, নবেম্বর মাসের প্রথম দিকে দেশের উত্তরাঞ্চলসহ কিছু জায়গায় শীতের অনুভূতি সৃষ্টি হয়। তবে এই বছর মৌসুমি বায়ু অনেক দেরিতে বিদায় নেয়ার কারণে শীত আসতে কিছুটা দেরি হচ্ছে। এবার নবেম্বরের শুরুতে দু’তিন দিন প্রকৃতিতে বেশ ঠাণ্ডা অনুভূত হয়। কিন্তু হঠাৎই সেই ঠাণ্ডা ভাব উধাও হয়ে যায়। তাপমাত্রা বাড়তে থাকে। অন্যান্য বছরে নবেম্বরের মাঝামাঝি যে তাপমাত্রা থাকে, গত কয়েক দিন ধরে এবার এই সময়ে তাপমাত্রা তার চেয়ে বেশিই রেকর্ড হয়েছে। বৃষ্টির কারণে ২৩ থেকে ২৬ নবেম্বরের মধ্যে তাপমাত্রা কমে যাবে। তবে এই সময়ে শীতের আমেজ না থাকলেও গরমের ভাব অনেকটা কমে গেছে। ভোরের দিকে ঠাণ্ডাও অনুভূত হচ্ছে। তবে বেলা বাড়লে তার রেশও কেটে যাচ্ছে। তবে শুক্রবারের আবহাওয়া ছিল ভিন্ন। সকাল থেকেই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মেঘলা ভাব বিরাজ করে। বিকেল হতেই কালো মেঘে ঢেকে যায় আকাশ। বৃষ্টি বেশি না হলেও সামান্য বৃষ্টিতেই মানুষ বেশ ভোগান্তি পড়ে। কোথাও কোথাও রাস্তায় বৃষ্টির পানি জমতে দেখা যায়। এদিকে শীত আগমনী ভাব শুরু হতেই বায়ু দূষণের হাত থেকেই অনেকটাই রেহাই পাবে রাজধানীবাসী। বিকেল দিকে বৃষ্টি শুরু হয়। শুরুতে অল্প বৃষ্টি হলেও পরে ঝুম বৃষ্টি নামে। টানা ২০ থেকে ২৫ মিনিট মুষলধারে বৃষ্টি হয়।