স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা

139

ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে জীবননগর, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে
সমীকরণ প্রতিবেদন:
জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে জীবননগর, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার পৃথক সময়ে স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জীবননগর:
জীবননগরে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সম্মেলনকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান।
সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকী, জুনিয়ার কনসালটেন্ট ডা. রফিকুল ইসলাম, শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, সমাজসেবা কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান, জীবননগর প্রেসক্লাবের সভাপতি আনোয়ারুল কবির, রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহ, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খান, আওয়ামী লীগের নেতা আ. হান্নান, বীর মুক্তিযোদ্ধা দলিল উদ্দিন দলু প্রমুখ। এ বছর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১১০টি কেন্দ্রে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ২ হাজার শিশুকে ১ লাখ আইইউ ভিটামিন এ ক্যাপসুল এবং ১ থেকে ৫ বছরের শিশুকে ২ লাখ আইইউ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনা করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপপরিদর্শক আনিসুর রহমান।
এদিকে একই দিনে জীবননগর পৌরসভার আয়োজনে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে পৌরসভার হলরুমে এ অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন পৌর সচিব জায়েদ হোসেন, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম আর বাবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা দলিল উদ্দিন দলু, পৌর কাউন্সিলর আবুল কাশেম, খন্দকার আলী আজম, আপিল উদ্দিন, আত্তাব উদ্দিন, বিউটি খাতুন, রিজিয়া খাতুন, ভারপ্রাপ্ত ইন্সপেক্টর জামাল হোসেন প্রমুখ।
এ বছর জীবননগর পৌরসভায় ২৮টি কেন্দ্রে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সের ৪৬২ জন শিশুকে ১ লাখ আইইউ ভিটামিন এ ক্যাপসুল এবং ১ থেকে ৫ বছরের শিশুকে ২ লাখ আইইউ এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচলনা করেন পৌর কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ।
মেহেরপুর:
মেহেরপুর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২২ জুন সারা দেশের সঙ্গে মেহেরপুরেও জাতীয় ভিটামিন এ প্লাাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে। মেহেরপুর জেলার ৪৭৬টি কেন্দ্রে (অতিরিক্ত ২০টিসহ) ৬৭ হাজার ৮২১ শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে সিভিল সার্জনের সম্মেলনকক্ষে সিভিল সার্জন ডা. শামীম আরা নাজনীনের সভাপতিত্বে এ প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অলোক কুমার দাস। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনবিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিভিল সার্জন অফিসের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. ফয়সাল কবীর।
প্রেস ব্রিফিংয়ে সিভিল সার্জন ডা. শামীম আরা নাজনিন জানান, জেলার তিন উপজেলা ও দুটি পৌরসভায় ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৮ হাজার ১৩৮ শিশুকে এক লাখ ক্ষমতা সম্পন্ন নীল ক্যাপসুল এবং ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৫৯ হাজার ৬৮৩ শিশুকে দুই লাখ ক্ষমতা সম্পন্ন লাল রঙের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তিনি আরও বলেন, এই ভিটামিন এ ক্যাপসুল অসুস্থ শিশু, ছয় মাসের কম বয়সী শিশু, পাঁচ বছরের বেশি বয়সী শিশু ও চার মাস আগে খাওয়ানো হয়েছে এমন শিশুকে খাওয়ানো যাবে না। সিভিল সার্জন বলেন, ইতিমধ্যে এ প্লাস ক্যাম্পেইন সফলভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে জেলা, উপজেলা ও পৌরসভা পর্যায়ে মতবিনিময় সভা এবং গ্রামে গ্রামে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন ইপিআই সুপারভাইজার আব্দুস সালাম। এ সময় জেলার ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকেরা প্রেস ব্রিফিংয়ে অংশগ্রহণ করেন।
একই দিন মেহেরপুর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে জেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে সিভিল সার্জনের সম্মেলনকক্ষে সিভিল সার্জন ডা. শামীম আরা নাজনীনের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনি। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ জাহিদুল ইসলাম, মেহেরপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. তাহাজ্জেল হোসেন, আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) এহসানুল কবির আল আজীজ, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শাহিন আখতার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জেছের আলী, জেলা বিএমএর সভাপতি ডা. রমেশ চন্দ্র নাথ। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনবিষয়ক আলোচনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিভিল সার্জন অফিসের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. ফয়সাল কবীর।
ঝিনাইদহ :
জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ঝিনাইদহে সাংবাদিকদের সঙ্গে ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে সিভিল সার্জনের সম্মেলনকক্ষে এ কর্মশালার আয়োজন করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সিভিল সার্জন ডা. সেলিনা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় জানানো হয়, ২২ জুন ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ২৫ হাজার ৫ শ ৩ জন ও ১২ মাস থেকে ৬৯ মাস বয়সী ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬ শ ৫১ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এ জন্য জেলার ৬টি উপজেলা ও ৪টি পৌরসভা এলকায় ১৮ শ ৭১টি কেন্দ্র খোলা হবে। এ কাজে ৩ হাজার ৭ শ ৪২ জন স্বেচ্ছাসেবী এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের ৪ শ ৯৪ জন মাঠকর্মী সহায়তা করবেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিভিল সার্জন অফিসের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. প্রসেনজিৎ বিশ্বাস পার্থ। এ সময় সিভিল সার্জন ডা. সেলিনা বেগম ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনকে সফল করার জন্য সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন।