স্বর্ণ চোরাচালানের গডফাদার মান্নান পুলিশের খাঁচায়

325

দর্শনার আলোচিত সাইফুল হত্যাকান্ডের অন্যতম অভিযুক্ত স্বর্ণ চোরাচালানের গডফাদার মান্নান পুলিশের খাঁচায়
আজ আদালতে প্রেরণ : রিমান্ডে নিলে বেরিয়ে আসবে রাঘব বোয়ালদের সন্ধান
নিজস্ব প্রতিবেদক: টোকাই থেকে মাদক স¤্রাট ও আন্তর্জাতিক স্বর্ণ চোরাচালান সিন্ডিকেটের হোতা দর্শনার চাঞ্চল্যকর সাইফুল হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী দর্শনার মোবারক পাড়ার মান্নান অবশেষে পুলিশের খাঁচায় বন্দি। গতকাল রাত পোনে দশটার দিকে দামুড়হুদা থানা পুলিশের একটি দল দর্শনা রেলগেট নিমতলা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। সে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দর্শনা ঈশ্বরচন্দ্রপুরে সংঘটিত একটি মারামারি মামলার এজাহারভুক্ত আসামী।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আব্দুল মান্নান দর্শনা মোবারকপাড়ার আলী হোসেনের ছেলে। সে ছোট বেলা থেকেই চোরাচালান কাজের সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে। প্রথমদিকে অন্যের লেবার হিসাবে সীমান্ত থেকে মাদকসহ বিভিন্ন অবৈধ্য মালামাল আনা নেওয়া করতো সে। পরে নিজেই মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। অল্পদিনেই বেশ খ্যাতিও অর্জন করে সে। এক পর্যায়ে নিজেই স্বর্ণ চোরাচালান সিন্ডিকেট সৃষ্টি করে। পাশাপাশি ব্রাইট এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে মাদক ও স্বর্ণ চোরাচালানের এক গোল্ডেনম্যাপ সৃষ্টি করে সে। দিনে দিনে অবৈধ ব্যবসার মাধ্যমে অঢেল সম্পদের মালিক বনে যায় মান্নান। হঠাৎ করে সম্পদের মালিক হওয়ায় এলাকায় গড়ে তোলে ছোট ছোট গ্যাং গ্রুপ। তার নির্দেশে এই গ্যাং গ্রুপগুলো একের পর এক প্রতিপক্ষসহ সাধারণ মানুষের উপর অন্যায় অত্যাচার করতে থাকে। জনশ্রুতি রয়েছে মান্নান অদৃশ্য ক্ষমতাবলে পুলিশ প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে অবাধে তার চোরাচালান ব্যবসা চালিয়ে আসছে। গত ১৪ ই এপ্রিল দর্শনা পারকৃষ্ণপুর-মদনা রোডের উপর বিজিবি কর্তৃক আটক ৩ কেজি ১৭৫ গ্রাম ও এরআগে ২০০৭ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি দামুড়হুদা থানার লোকনাথপুর এলাকায় বিডিআর কর্তৃক আটক ১২ কেজি ৯৫০ গ্রাম স্বর্ণের চালানের সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে। এ ছাড়াও গত ১২ আগস্ট উথলী মোল্লাবাড়ি থেকে বিজিবি’র হাতে আটক আড়াই কেজি সোনার গহণা চোরাচালানের সাথেও সে জড়িত রয়েছে বলে ব্যাপক জনশ্রুতি রয়েছে।
স্বর্ণ চোরাচালান নিয়ে বিরোধের জের ধরেই বছর দশেক আগে মান্নান-নজরুল মল্লিকসহ তার সঙ্গীরা ২০০৭ সালের ১লা মে দর্শনার সাইফুলকে গুলি করে হত্যা করে। প্রথমে এই চাঞ্চল্যকর সাইফুল হত্যা মামলায় মান্নানের যোগসূত্র পুলিশ বুঝতে না পারলেও পরে গভীর তদন্তে বেরিয়ে আসে সাইফুল হত্যায় মান্নানের সম্পৃক্ততা। পরে পুলিশ অন্যান্য আসামীদের সাথে মান্নানকে সাইফুল হত্যা মামলার অন্যতম আসামী করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। এরপর আদালত থেকে জামিন নিয়ে বীরদর্পে এলাকায় ফিরে ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় নিজেকে দর্শনার ডন হিসাবে তুলে ধরে মান্নান।
আটক মান্নানকে আজ সোমবার আদালদে সোপর্দ করা হবে বলে জানা গেছে। এদিকে অনেকের দাবি তাকে রিমান্ডে নিয়ে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসতে পারে সাইফুল হত্যাসহ মাদক ও চোরাচালানের চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। প্রকাশ হতে পারে এ জগতের সাথে জড়িত রাঘব বোয়ালদের সন্ধান। (চলবে…….)