সেমিফাইনালে বাংলাদেশের যুবারা

18

খেলাধুলা ডেস্ক:
অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশের যুবারা। গতকাল রোববার শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সেমিফাইনালে নাম লেখায় আকবর-শামীমরা। নেপালের যুবারা প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬১ রান করে। জবাবে ৪ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশের যুবারা। ৩২.২ ওভারের সময় ৪ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের রান ছিল ১৩২। তখন জয়টা অসম্ভব মনে হয়েছিল। ওভার প্রতি ৭ এর উপরে রান প্রয়োজন ছিল। কিন্তু সেই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন আকবর আলী ও শামীম হোসেন। তারা দুজন পঞ্চম উইকেট জুটিতে অবিচ্ছিন্ন থেকে ১৩০ রানের জুটি গড়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। অধিনায়ক আকবর ৮২ বল খেলে ১৪টি চারের সাহায্যে অপরাজিত ৯৮ রান করেন। তার সঙ্গে ৪ চারে ৪২ রানে অপরাজিত থাকেন শামীম। তাদের আগে মাহমুদুল হাসান জয় ৪০ ও তৌহিদ হৃদয় ৬০ রান করেন। তারা দুজন তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৭৯ রান তোলেন। তাতে জয়ের ভিত পায় বাংলাদেশ। গতকাল অবশ্য উদ্বোধনী জুটি সুবিধা করতে পারেনি। ১৭ রানের মাথায় তানজিদ হোসেন (৯) ও ১৯ রানের মাথায় অনিক সরকার সেতু (৫) আউট হন। এরপর জয়, হৃদয়, আকবর ও শামীম ব্যাটিং দৃঢ়তা দেখিয়ে দলকে জয় উপহার দেন। বিশেষ করে আকবর ও শামীম। তার আগে নেপালের ২৬১ রানের সংগ্রহে ব্যাট হাতে অবদান রাখেন পবন শরাফ ও সন্দীপ ঝোরা। পবন ১০৯ বল খেলে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৮১ রান করেন। আর ঝোরা ৩ চার ও সমান সংখ্যক ছক্কায় ৩৭ বলে ৫৬ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। বল হাতে বাংলাদেশের তানজিম হাসান সাকিব ও শাহীন আলম ২টি করে উইকেট নেন। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন বাংলাদেশের অধিনায়ক আকবর আলী। ‘বি’ গ্রুপে মঙ্গলবার গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের যুবাদের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও কুয়েত। দুই গ্রুপ থেকে সেরা চারটি দল সেমিফাইনালে জায়গা করে নিবে। ১২ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে দুটি সেমিফাইনাল। আর ১৪ সেপ্টেম্বর হবে ফাইনাল।