সিরিয়ার সেনাদের পাওয়া মাত্র গুঁড়িয়ে দেয়া হবে

15

বিশ্ব প্রতিবেদন
তুরস্কের যদি আর একটি সেনাও আঘাত পায় তাহলে বিশ্বের যেখানেই সিরিয়ার সেনাদের পাওয়া যাবে সেখানেই তাদের গুঁড়িয়ে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। এ জন্য প্রয়োজনে আকাশ থেকেও হামলা চালানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। বুধবার তুরস্কের পার্লামেন্টে দেয়া বক্তব্যে সিরিয়ার সরকারকে সাবধান করে এই হুঁশিয়ারি বার্তা দেন এরদোগান। বক্তব্যে এরদোগান বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই ইদলিব থেকে সিরিয়ার সেনাদের হটিয়ে দিতে বধ্য পরিকর তুরস্ক। এ জন্য যা যা করা দরকার আমরা করবো। প্রয়োজনে আকাশ ও ভ’মি উভয় দিক থেকে হামলা চালাবো। তুরস্ক সম্প্রতি সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব প্রদেশে ১২টি পর্যবেক্ষন চৌকি স্থাপন করেছে। এ নিয়ে ২০১৮ সালে রাশিয়ার সঙ্গে দেশটির চুক্তিও হয়েছিলো। সেই চুক্তিতে তখন সমর্থন দিয়েছিলেন সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ। ফেব্রুয়ারির প্রথম থেকেই সিরিয়ার অভ্যন্তরে হাজার হাজার সেনা প্রবেশ করাতে শুরু করে তুরস্ক। একইসঙ্গে মোতায়েন করে ভারি যুদ্ধযান। মোতায়েন করেছে রাডার, ট্যাংক ও ক্যারিয়ারও। কিন্তু এরপরই সিরিয়া দেশটির অভ্যন্তরে তুরস্কের সামরিক পোস্টগুলো লক্ষ্য করে হামলা চালাতে শুরু করে। এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি হামলায় ১৩ তুর্কি সেনাকে হত্যা করেছে আসাদপন্থি সামরিক বাহিনী। ফলে নতুন করে উত্তেজনা দানা বাঁধতে শুরু করেছে। তুরস্ক একে চুক্তির লঙ্ঘন হিসেবে আখ্যায়িত করে উচিৎ জবাব দেয়ার হুমকি দিয়েছে। মঙ্গলবার এরদোগান বলেন, তুর্কি সেনাদের ওপর হামলার জন্য আসাদকে চরম মূল্য দিতে হবে।
এদিকে রাশিয়ার সহায়তায় ইদলিবে সর্বাত্মক অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে সিরিয়া। ইতিমধ্যে তুরস্ক সমর্থিত বিদ্রোহী ও জঙ্গিদের হটিয়ে প্রদেশটির বড় অংশ দখল করে নিয়েছে আসাদ বাহিনী। এরমধ্যে রয়েছে গুরুত্বপূর্ন বেশ কয়েকটি শহরও। তবে যুদ্ধের ফলে বাড়ছে শরনার্থী সংকট। জাতিসংঘ জানিয়েছে ইদলিব থেকে গৃহহীন হয়েছেন প্রায় ৭ লাখ মানুষ।