রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন

35

শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রাখুন
বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন দ্রুত এগিয়ে চলেছে। দ্রুত শিল্পায়ন হচ্ছে। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাধা কাটিয়ে বাংলাদেশ দিন দিন স্বাবলম্বী হচ্ছে। শিল্প উৎপাদনের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের রপ্তানি বেড়েছে। বাংলাদেশের পণ্য আজ বিদেশে সমাদৃত। দেশে খাদ্যসংকট নেই। কৃষি আর শিল্পসহ অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে। বেড়েছে বৈদেশিক মুদ্রা তহবিল। বিশ্বব্যাংকের এক সাবেক প্রধান অর্থনীতিবিদের মতে, এক নীরব রূপান্তর ঘটে গেছে বাংলাদেশে। কিন্তু দেশের এই অগ্রযাত্রায় নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন। বাংলাদেশের রাজনীতি আজ যেন এক দুঃসময় পার করছে। তার বড় কারণ রাজনীতিতে অর্থ আর পেশিশক্তির ক্রমবর্ধমান প্রভাব। রাজনীতিতে আদর্শ, জনকল্যাণ, আত্মত্যাগ ও নৈতিকতা ক্রমেই দুর্বল থেকে দুর্বলতর হচ্ছে। রাজনীতি হয়ে উঠছে বিত্ত-বৈভব অর্জনের হাতিয়ার। এক শ্রেণির মানুষের রাজনীতিতে আগমনই যেন বিত্ত-বৈভব অর্জনের প্রত্যাশায়। সম্প্রতি এ ধরনের নেতাকর্মীর প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ১৪ সেপ্টেম্বর শনিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে দল ও সহযোগী সংগঠনের কয়েকজন সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ নেতাকে ইঙ্গিত করে তাঁদের কর্মকা-ের সমালোচনাও করেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলে থাকা সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও দুর্নীতিবাজ নেতাদের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের কয়েকজন নেতা সম্পর্কে তিনি বলেন, তাদের বাড়াবাড়ি আর সহ্য করা হবে না। যুবলীগসহ আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনগুলোর বিতর্কিত নেতাদের কর্মকা-ের সমালোচনাও করেন তিনি। আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীকে আরো দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, জনগণের আস্থা ধরে রাখতে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর ওই হুঁশিয়ারি উচ্চারণের পর ওই দিনই সরিয়ে দেওয়া হয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে। এরপর গত বুধবার র‌্যাবের পক্ষ থেকে ঢাকার অবৈধ ক্যাসিনো ও জুয়ার আখড়া বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয়। ঢাকার ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে অবৈধভাবে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়াকে গ্রেপ্তারও করে র‌্যাব। তাঁর বাসা থেকে একটি অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ও লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গের অভিযোগে দুটি অস্ত্র জব্দ করা হয়। র‌্যাব জানিয়েছে, ক্যাসিনো বা জুয়ার আখড়া বন্ধে এ ধরনের অভিযান চলবে। যুবলীগের ঢাকা মহানগরের নেতাদের বিরুদ্ধে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগ তোলার পেছনে সংগঠনের যুবলীগের চেয়ারম্যান ‘ষড়যন্ত্র’ দেখলেও এ ধরনের নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। রাজধানী ঢাকা থেকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত অনেক নেতার দাপটে সাধারণ মানুষ বিরক্ত। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-ের সুফল ব্যর্থ হচ্ছে এসব নেতাকর্মীর কারণে। আর এ কারণেই দলে শুদ্ধি অভিযান প্রয়োজন। ক্ষমতায় থেকে আওয়ামী লীগ উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। সব ধরনের রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া এখন জরুরি হয়ে পড়েছে।