যুবলীগ বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত

53

বর্ণাঢ্য শোভাযাত্র ও সমাবেশের মধ্যে দিয়ে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন
সমীকরণ প্রতিবেদন:
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে পৃথক আয়োজনে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা।
চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা টাউন ফুটবল মাঠ থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শহরের শহীদ আবুল কাশেম সড়ক, শহীদ হাসান চত্বর, পুরাতন হাসপাতাল রোড, কোর্ট রোড, কলেজ রোড ও কবরী রোড হয়ে শোভাযাতাটি টাউন ফুটবল মাঠে গিয়ে শেষ হয়। পরে টাউন ফুটবল মাঠে এক আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠান হয়।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সেখ শামসুল আবেদীন খোকন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, যুবলীগ বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত একটি সংগঠন। এ যুবলীগ বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহামানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে কাজ করছে। ইতিহাস সাক্ষী, যুবলীগ বাংলাদেশের সব উন্নয়নের সাথী।
অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়নে যুবলীগ কাজ করছে। প্রতিটি ভালো কাজে যুবলীগ আছে। এ সংগঠনের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আমাদের স্পষ্টভাবে প্রমাণ দেয় এর গৌরবের কথা। গৌরবময় ঐতিহ্য সঙ্গে নিয়ে সামনের দিকে দৃঢ় গতিতে এ সংগঠন এগিয়ে যাবে।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার বলেন, ‘আমরা এগিয়ে চলেছি দৃঢ় গতিতে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বাংলাদেশ যুবলীগ কাজ করছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগ মানুষের জন্য শান্তির সঙ্গে কাজ করছে, আগামীতেও করবে। ইদানিং কিছু উস্কানিমূলক বক্তব্য শুনছি, যাঁরা দিচ্ছেন, তাঁদের উদ্দেশে বলছি, সাধু সাবধান।’ এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে একটি চক্র হয়রানিমূলক মামলা দিচ্ছে। আমরা শান্তির সঙ্গে মানুষের জন্য, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার জন্য কাজ করি। এরপর কিন্তু আমরা আর চুপ থাকব না। ঐক্যবন্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। থেমে থাকার সময় আর নেই, আমরা প্রতিবাদ করব। প্রয়োজনে রাজপথে নামব।’
জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জিল্লুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও আইলহাঁস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাড. শফিকুল ইসলাম শফি, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কবির, জেলা যুবলীগের সদস্য সাজেদুল ইসলাম লাভলু, হাফিজুর রহমান হাপু, আজাদুর রহমান আজাদ প্রমুখ।
দর্শনা:
সারা দেশের ন্যায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনায় জাকজমকপূর্ণ পরিবেশে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের আয়োজনে দর্শনা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে সকাল আটটায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তলোন শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শেখ মুনিরের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। পরে বেলা তিনটায় একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রাধান সড়ক প্রদিক্ষণ শেষে রেলবাজার-সংলগ্ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান ছোটর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাষক মাহফুজুর রহমান মনজু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনসুর বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদের সদস্য শফিউল কবীর ইউসুফ, দর্শনা রেলবাজার কমিটির সভাপতি টিপু সুলতান, সাধারণ সম্পাদক সাবির হোসেন মিকা, রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি হাবিবুর রহমান হবা জোয়ার্দ্দার, উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি সোলাইমান কবীর, দর্শনা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ও বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি আ. গফুর।
এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফ মল্লিক, দর্শনা পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ববি, দর্শনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন তপু, ছাত্রলীগের নেতা কামরুল হাসান লোমান, অপু সরকারসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা। আলোচনা সভা শেষে কেক কাটার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি সমাপ্ত হয়। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী।
কার্পাসডাঙ্গা:
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করেছে দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিযন যুবলীগ। এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার কার্পাসডাঙ্গা ব্রিজ মোড়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম এপির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি ইমদাদুল হক ইমন, আ.মজিদ, কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজ কচি, যুগ্ম সম্পাদক শরীফুজ্জামান শরীফ, শরীফ রতন, সাংগঠনিক সম্পাদক আতিক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মেহেদী হাসান মিলন, দপ্তর সম্পাদক বকুল, অর্থবিষয়ক সম্পাদক শফিউদ্দীন বাবু, যুবলীগের নেতা মিণ্টু, বিল্লাল, আক্তারুল, জাফর, ওমিদুল, ফারুক, আশরাফুজ্জামান রনি ও জসিম উদ্দীন সাগর। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মখলেছুর রহমান রিপন, ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি লুৎফর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শওকত শ্রমিক নেতা শওকত আলী, ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম মিণ্টু, ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. রবিউল হক, সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, কার্পাসডাঙ্গা ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আ. কাদের বিশ্বাস, আহম্মদ মাস্টার, আ.হাকিম মেম্বর, জেলা কৃষক লীগের মৎস্য ও পশুবিষয়ক সম্পাদক আ.সালাম বিশ্বাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য জাহিদুর রহমান মুকুল প্রমুখ।
জীবননগর:
জীবননগরে যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল সোমবার সকালে জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যলয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তলন করা হয়। পরে সেখানে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুস সালাম ঈশা, সাধারণ সম্পাদক খাইরুল বাশার শিপলু, পৌর যুবলীগের সভাপতি শাহ শরিফুল ইসলাম ছোট বাবু, সম্পাদক মজিবার রহমানসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আসা যুবলীগের নেতা-কর্মীরা।
মেহেরপুর:
যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মেহেরপুরে আলোচনা সভা ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়। গতকাল সোমবার সন্ধ্যারাতে মেহেরপুর পৌরসভার কালাচাঁদ মেমোরিয়াল হল মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও পৌরসভার মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন মেহেরপুর সদর উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, জেলা যুবলীগের সদস্য মাহাবুব হাসান ডালিম, ইয়ানুস আলী, সাজেদুর রহমান, সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মিজানুজামান অপু, যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান, যুবলীগের নেতা হাসানুজ্জামান হিলন প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সেখানে কেক কাটা হয়।
অপর দিকে, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মেহেরপুরে কেক কাটা, আলোচনা সভা ও আনন্দ র‌্যালির আয়োজন করা হয়। মেহেরপুর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরফরাজ হোসেন মৃদুলের নেতৃত্বে গতকাল সোমবার রাত আটটার দিকে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি মেহেরপুর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরফরাজ হোসেন মৃদুল। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু, মুজিবনগর উপজেলা সভাপতি কামরুল হাসান, শহর সভাপতি শেখ কামাল, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান হিরন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বারিকুল ইসলাম লিজন, সাবেক সহসভাপতি আবু সামা সাগরসহ জেলা কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, তাঁতী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের নেতারা। আলোচনা সভা শেষে সেখানে কেক কাটা হয়।
গাংনী:
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাংনী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে গাংনীতে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেল চারটায় গাংনী বাসস্ট্যান্ড শহীদ রেজাউল চত্বরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে সেখান থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন মেহেরপুর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন।
গাংনী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক। বিশেষ অতিথি ছিলেন গাংনী উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন, গাংনী পৌরসভার সাবেক মেয়র আহম্মেদ আলী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কৃষিবিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শাহ।
উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মহিবুর রহমান মিণ্টু, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার পাশা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান হাবিব, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি তারিফুল ইসলাম জীবনসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ সাহিদুজামান খোকনের বক্তব্য ঘিরে নানা সমালোচনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক। তিনি বলেন, সম্মেলনকে ঘিরে এমপি উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতাদের হুমকি দিয়েছেন। সম্মেলনে লাঠি নিয়ে আসতে বলেছেন। সেই লাঠি দিয়ে কাদের মারা হবে, এমন প্রশ্ন করেন তিনি। আওয়ামী লীগকে হাইব্রিডমুক্ত করাসহ সাংসদ সাহিদুজামানকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নিয়ে খেলতে আসবেন না, তাহলে খেলার ফল ভালো হবে না।
অপর দিকে, গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম নিজেকে উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক দাবি করে আতশবাজির মধ্য দিয়ে কেক কেটে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম কাজল, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন মিঠু, গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাসান রেজা সেণ্টু, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদ হাচিব, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম সেণ্টু, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিদ আল জাবের প্লাবন ও ছাত্রলীগের নেতা কৌশিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।
এ সময় পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম বলেন, মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য সাহিদুজামান খোকন গাংনীবাসীর ভাগ্যেন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই তাঁর সঙ্গে থেকে গাংনীর উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানান।