যাওয়া হলো না ইতালি, অপহরণকারীদের গুলিতে আলমডাঙ্গা বকুল আহত

42

প্রতিবেদক, আলমডাঙ্গা:
লিবিয়ায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইতালি যাওয়া হলো না আহত বকুলের। গত ২৮ শে মে বৃহস্পতিবার সকালে ইতালি যাওয়ার পথে অপহরণকারীরা তাদের উপর গুলি বর্ষণ করে। এরই কারণে আলমডাঙ্গার বকুলসহ ১১জন আহত হয়, নিহত হয় ২৬ জন বাংলাদেশী। বকুল আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ ইউনিয়নের খেঁজুরতলা গ্রামের দিনমজুর হাসান আলীর ছেলে।
জানাগেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার খেজুরতলা গ্রামের হাসান আলীর ছোট ছেলে বকুল (২৫) ফরিদপুর জেলার বক্কর সদ্দার দালালের মাধ্যমে গত ২০১৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর লিবিয়ার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন। এরই কয়েক মাস পার হলে আবারো ওই দালালের মাধ্যমে লিবিয়া থেকে চোরাই পথে ইতালি প্রবেশের চেষ্টা করে। গত বৃহস্পতিবার সকালে ইতালি যাওয়ার জন্য পানি পথে রওনা হয়। তারা সবাই অবৈধভাবে লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পারি দিয়ে ইতালি যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। এই মাসের মাঝামাঝি সময়ে বেনগাজি থেকে উপকূলবর্তী যুওয়ারা অঞ্চলে যাওয়ার পথে অপহরণকারীদের কবলে পড়েন তারা। গত বৃহস্পতিবার সকালে লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপলি থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণের মিজদা অঞ্চলে অপহরণকারীদের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশি নিহত হন। আহত হন আরো ১১ জন বাংলাদেশি। এরই মধ্যে আহত হন আলমডাঙ্গার ছেলে বকুল। তাদের লিবিয়া পুলিশ উদ্ধার করে বর্তমানে মিজদার একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।