মোসারেফ হোসেন মশা’র ঝুলন্ত লাশ : রহস্য

221

চুয়াডাঙ্গায় নিখোঁজের একদিন পরে নিজ দোকানের ভিতরে
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গায় বড়বাজার ফেরিঘাট রোডে নিখোঁজের একদিন পরে নিজ দোকানের ভিতরে মোসারেফ হোসেন ওরফে মশা (৫০) নামের এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার বিকালে ফেরিঘাট রোডের নিহতের নিজ দোকান ভেঙ্গে উদ্ধার করা হয়। নিহত মোসারেফ ওরফে মশা চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বাগানপাড়ায় মৃত. খেলাফত সর্দারের ছেলে। পরে পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তবে এঘটনায় রহস্যের দানা বেধেছে।
পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিকালে মোসারেফ নিজ বাসা থেকে বের হয়। পরে রাতে বাড়িতে না ফিরলে অনেক খোজাখুজির পরও তাকে পাওয়া যায়নি। পর দিন তার ছেলে সজিব খুজতে খুজতে তার বাবার দোকানের সামনে গিয়ে দেখে দোকানের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। এতে সজিবের মনে সন্দেহ হলে আশেপাশের লোকজনকে ডেকে দোকানেনের দরজা ভেঙ্গে দেখে গলাই ওড়না দিয়ে ঝুলছে। খবর পেয়ে সদর থানায় পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। কয়েকজন এলাকাবাসী বলেন, মোসারেফ ও তার স্ত্রী ফিরোজা খাতুনের সাথে প্রায় প্রায় কোন কারণে ঝগড়া করতো। এরই জের ধরে স্ত্রীর উপরে অভিমান করে গলাই ফাস দিয়ে অত্মহত্যা করেছে। এ দিকে নিহতের অ-কোষ ও ডান কানে থেকে রক্তক্ষরণ হতে দেখা যায়। এতে আরো বাড়ে সন্দেহ।
এ বিষয়ে সদর থানা পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে আমরা লাশটি উদ্ধার করি। তার অ-কোষ ও কান দিয়ে রক্তক্ষরণ হয়ে দেখা যায়। তবে এখনি কিছু বলা যাচ্ছে না। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। আজকে ময়নাতদন্ত করা হবে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলেই বোঝা যাবে এটা হত্যা নাকি আত্মহত্যা। তবে এঘটনাই সদর থানাই একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।