মোবাইল কোর্টে মাদক ব্যবসায়ীর কারাদন্ড

141

চুয়াডাঙ্গা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পৃথক মাদকবিরোধী অভিযান
নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর আকন্দবাড়িয়া এলাকায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর পৃথক অভিযান চালিয়ে গাঁজা রাখার অপরাধে হিয়াত (৫০) নামের একজনকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তিন মাসের কারাদ- প্রদান করে। অপর দুটি অভিযানে ফেনসিডিল উদ্ধারসহ তিনজনকে পলাতক আসামি দেখিয়ে মাদক আইনে মামলা করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া মাদক সংশ্লিষ্ট থানা হেফাজতে সোপর্দ করা হয়। গতকাল বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর আকন্দবাড়িয়া এলাকায় পৃথক এ অভিযান পরিচালান করা হয়।
মাদকদ্রব্য অফিস সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকন্দবাড়িয়া গাঙপাড়ায় মাদক বিক্রেতা ইকরামুলের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলার সহকারী কমিশনারসহ চুয়াডাঙ্গা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। এ সময় ইকরামুল (৩৫) ও তাঁর স্ত্রী পারভীন খাতুন (৩০) পালিয়ে গেলেও তাঁদের বসতঘর থেকে ১২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে অভিযানকারী দল।
অপর দিকে, পলাতক ইকরামুলের দ্বিতীয় স্ত্রী আকন্দবাড়িয়া আবাসন এলাকায় রিনা খাতুন (৩০) নামের এক নারীর বাড়িতে অভিযান পরিচালান করে ওই টিম। এ সময় রিনা খাতুন পালিয়ে গেলেও তাঁর ঘর থেকে একটি প্লাস্টিকের তেলের বোতলে রাখা পাঁচ লিটার লুজ ফেনসিডিল উদ্ধার করে অভিযানকারী দল।
এ ছাড়াও আবাসন এলাকায় আরেকটি অভিযান চালিয়ে মৃত আকবর আলীর ছেলে হিয়াত আলীকে (৫০) ২০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করে অভিযানকারী দল। এ সময় মাদক রাখার অপরাধে মোবাইল কোর্ট বসিয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ৩৬(১)২১ ধারা মোতাবেক ওই আসামিকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান করেন সদর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইসরাত জাহান।
পরে দ-প্রাপ্ত আসামিকে জেলহাজতে প্রেরণসহ তিনজনকে পলাতক দেখিয়ে মামলা দায়ের করে উদ্ধার হওয়া মাদক সংশ্লিষ্ট থানা হেফাজতে সোপর্দ করা হয়।