মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ : বখাটেদের হাতে পিতা জখম

163

ঝিনাইদহ অফিস: মেয়েকে উত্ত্যক্ত ও অশ্লীল কথাবার্তার প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে বখাটেরা। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার বলাবাড়িয়া গ্রামে। এঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। বলাবাড়িয়া গ্রামের মজনুর রহমান ও আরিফ হোসেন জানান, গ্রামের কাজী পাড়ার আলাউদ্দীনের মেয়ে তৃষা (১১) বাড়ির সামনে দাড়িয়ে ছিল। এ সময় আব্দুল খালেকের ছেলে তোতা, বাহারউদ্দীনের ছেলে সাইদ, ফজলুর রহমানের ছেলে রুবেল, শাহাজাহানের ছেলে জাহিদুল, আরশেদ আলীর ছেলে নয়ন, রেজেক আলীর ছেলে উজ্বলসহ ৮/১০ ছেলে মেয়েটিকে অশ্লীল কথাবার্তা ও বাজে ইঙ্গিত করে। পরে মেয়েটি এ কথা তার পিতা আলাউদ্দীনের কাছে বিষয়টি জানায়। আলাউদ্দীন ওই সকল ছেলেদের অভিভাবকদের কাছে গিয়ে প্রতিবাদ জানায়। এ সময় এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী গোলাম হোসেন কাহারের ছেলে মতিয়ার রহমান কালু ও তার দলবল আলাউদ্দীনকে বেধড়ক পিটিয়ে জখম করে। এলাকাবাসী আলাউদ্দীনকে উদ্ধার করে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আলাউদ্দীন অভিযোগ করেন, আমার মেয়ে তৃষা বলাবাড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। তার বয়স মাত্র ১১ বছর। এই ছোট্ট মেয়েটিকে ঈদের দিন বিকালে বখাটেরা অশ্লীল কথাবার্তা ও বাজে ইঙ্গিত করে। এ ঘটরার আমি প্রতিবাদ করায় মতিয়ার রহমান কালু ও তার দলবল আমাকে মারপিট করে। এলাকার ইউপি চেয়াম্যান মিজানুর রহমান খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে। আমি পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছি। তারপরও বাদল (৩২) ও বাহার আলী (৫০) এলাকাবাসীর গণ পিটুনিতে আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে আলাউদ্দীর বাদী হয়ে সোমবার কোটচাঁদপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে। এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর থানার সেকে- অফিসর ব্রজবল্লভ সাধু বলেন আমরা অভিযোগ পেয়েছি। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।