মেহেরপুরে গ্রাম পোষ্ট মাষ্টারদের ৬ দফা বাস্তবায়নে স্বারকলিপি প্রদান : মৃত্যুবরণের অনুমতি দিন নতুবা বেতনভাতা বৃদ্ধি করুন

756

মেহেরপুর প্রতিনিধি: মেহেরপুরে গ্রাম পোষ্ট মাষ্টারদের দাবি মৃত্যুবরণের অনুমতি দিন, নতুবা বেতনভাতা বৃদ্ধিসহ ৬ দফা বাস্তবায়নের ব্যবস্থা নিন। আমাদের মৃত্যুবরণের অনুমতি দিন, আর যদি মৃত্যুবরণের অনুমতি না দেন তাহলে আমাদের বিভাগীয় কর্মচারী হিসাবে গন্য করার দাবীসহ বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও স্কেলের আওতায় এনে এবং মর্যাদার সাথে আমরা যাতে মানুষকে সেবা দিতে পারি সেই ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। গতকাল শনিবার বিকালে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ পোষ্টাল (ইডি) ডাক কর্মচারী ইউনিয়ন মেহেরপুর জেলা শাখার আয়োজনে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসকের কাছে এ আবেদন করে স্মারকলিপি জমা  দেন সংগঠনের সদস্যরা। সংগঠনের জেলার শাখার সভাপতি মাসুদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রসুল, মেহেরপুর পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, মেহেরপুর প্রধান ডাকঘর এর পোষ্ট মাষ্টার আ স ম জহুরুল হক, বুড়িপোতা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ জামান প্রমূখ।
সংগঠনের ৩২ জন স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে তারা উল্লেখ্য করেছেন, আমরা বাংলাদেশ পোষ্টাল (ইডি) ডাক কর্মচারী। বাংলাদেশ ডাক বিভাগ কর্তৃক গ্রাম শাখা পোষ্ট অফিস গুলো পরিচালিত হয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় যে, এই শাখা পোষ্ট অফিসের কর্মচারীরা খুব কষ্টে দিন যাপন করছে। এমনও শাখা পোষ্ট অফিসের কর্মচারী আছে যাদের তিন বেলা সঠিক ভাবে খাবার জোটে না। প্রতিটা শাখা পোষ্ট অফিসে প্রতিদিনের ন্যায় অনেক চিঠি পত্র বিলি ও ইস্যু হয় এবং দিনের ৯টা-২টা পর্যন্ত অফিসে সময় দিতে হয়। ওই শাখাগুলোতে কর্মচারীদের মধ্যে শাখা পোষ্ট মাস্টার ২৫২০ টাকা, পিয়ন ২৪৬০ টাকা, রানার ২৩৬০ টাকা মাসিক সম্মানি পায়। যা দিয়ে এই উচ্চমূল্যের বাজারে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে হয়। এছাড়া বেঁচে থাকাটাই দুঃসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। তারা স্মারকলিপিতে আরো বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয় আমাদের বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও স্কেলের আওতায় এনে এবং মর্যাদার সাথে আমরা যাতে মানুষকে সেবা দিতে পারি সেই ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য প্রধানসন্ত্রীসহ সরকারের উচ্চ পদন্ত কর্মকর্তাদের নিকট আমাদের দাবী নামা পৌছানোর ব্যবস্থা করবেন। যদি না হয় তাহলে কাফনের কাপড় শরীরে বেঁধে রাজপথে নামাসহ কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন। জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ তাদের স্মারকলিপি গ্রহণ করে বলেন, এই উচ্চমূল্যের বাজারে তারা যে সম্মানি পান, তা দিয়ে আসলেই মানবেতর জীবনযাপন করতে হয়। তাদের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি খুব দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হবে। এছাড়া আগামি জেলা প্রশাসকদের সম্মেলনে তাদের দাবি উঠানো হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।