মেহেরপুরে অস্ত্র মামলায় ১৪ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি কারাগারে

35

মেহেরপুর অফিস:
মেহেরপুরে অস্ত্র মামলায় ১৪ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হীরক আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। গতকাল বুধবার বিকেলে হীরক মেহেরপুর স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল চতুর্থ আদালতের বিচারক মো. কেরামত আলীর আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। হীরক মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার দুলালনগর চাঁদপুর গ্রামের খোকন আলীর ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১১ সালের ১৩ জুলাই গাংনী উপজেলার হেমায়েতপুর ক্যাম্পের উপপরিদর্শক (এসআই) টিপু সুলতান নাইন এমএম পিস্তলসহ হীরক, আলমগীর ও রিপন নামের তিন যুবককে আটক করে। ওই ঘটনায় অস্ত্র আইনের ১৮৭৮-এর ১৯ ধারায় গাংনী থানায় একটি মামলা করেন। যার মামলা নম্বর ২৪। জিআর কেস নম্বর ৩৭/২০১১। এসটি নম্বর ৮৭/২০১১। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রাথমিক তদন্ত শেষে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এ মামলায় মোট ১৩ জন সাক্ষী তাঁদের সাক্ষ্য প্রদান করেন। পরে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল চতুর্থ আদালতের বিচারক তাজুল ইসলাম ওই তিন ব্যক্তিকে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। সাজাপ্রাপ্ত তিনজনই পলাতক ছিলেন। এদিকে, হীরক দুই বছর সাজা খাটার পর জেল থেকে জামিনে বের হয়ে এসে পানি পথে মালয়েশিয়ায় পালিয়ে যান। পরে ২০১৯ সালের ১০ নভেম্বর দেশে ফিরে আসেন। গতকাল বুধবার স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল চতুর্থ আদালতের বিচারক মো. কেরামত আলীর আদালতে আত্মসমর্পণ করার পর আদালত তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।