মৃত্যুর মিছিল চলছেই : সড়ক দুর্ঘটনা রোধে চাই কঠোর আইন

172

দেশের বিভিন্ন স্থানে গত ৫৮ দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ৫১৬ জনের মৃত্যুর খবর রোববার প্রকাশিত হয়েছে। এই মৃত্যু আমাদের উদ্বিগ্ন ও বেদনাহত করে। প্রশ্ন হচ্ছে, এভাবে আমরা আর কত বেদনাহত হব? সড়কে এই মৃত্যুর বিভীষিকা কবে থামবে? সড়ক দুর্ঘটনা রোধে আদতে কারও কি কোনো উদ্যোগ আছে? খবর অনুযায়ী গত শুক্রবার রাত থেকে শনিবার রাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ১১ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২২ জনের প্রাণ গেছে। এই ২২ জনকে নিয়েই ৫৮ দিনে ৫১৬ জন মারা যায়। গত ২৬ মার্চ পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তির সংখ্যা ছিল ৪১২। মাত্র ১৩ দিনে মারা গেছে আরও ১০৪ জন। তাহলে আগামী ১৩ দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা এ রকম বা এর কাছাকাছি হবে, তা জ্যোতিষী না হয়েও বলে দেওয়া যায়। কারণ, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে আসলে কোনো কার্যকর উদ্যোগ নেই। ট্রাফিক পুলিশ, বিআরটিএ, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, যোগাযোগ মন্ত্রণালয় এই প্রতিটি সরকারি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে নির্মম অবহেলা দেখিয়ে চলেছে। সড়ক দুর্ঘটনার প্রধান কারণগুলো বিশেষজ্ঞরা চিহ্নিত করেছেন, সেসব কারণ কীভাবে দূর করা যায়, কী কী পদক্ষেপ নিলে সড়ক দুর্ঘটনার ঝুঁকি উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমিয়ে আনা সম্ভব, তা-ও তাঁরা বলেছেন। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের সুপারিশগুলো বাস্তবায়নের কোনো উদ্যোগ নেই। সম্প্রতি মন্ত্রিসভা সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৭ খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে। ওই আইনের খসড়ায় বলা হয়েছে, দুর্ঘটনার কারণে চালকের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে মাত্র তিন বছর। সড়ক দুর্ঘটনার অপরাধ হবে জামিনযোগ্য ও আপসযোগ্য। এমন আইন যে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে কোনো কার্যকর ভূমিকা রাখবে না, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করতে হলে আরও কঠোর আইন প্রণয়ন করতে হবে।