মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় বিশেষ মোনাজাত

115

যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ও আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে ঈদুল ফিতর উদযাপন
সমীকরণ প্রতিবেদন:
যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে গত বুধবার (৫ জুন) চুয়াডাঙ্গাসহ মেহেরপুর, ঝিনাইদ ও সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর আসে আনন্দের এ দিন। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ঈদের নামাজ আদায়ের মধ্যদিয়ে পালন করেছেন তাদের অন্যতম প্রধান এই ধর্মীয় উৎসব। আল্লাহ’র সন্তুষ্টি লাভের আশায় ধর্মপ্রাণ লাখো-কোটি মানুষ প্রতিকূল আবহাওয়া-ভারী বর্ষণকে উপেক্ষা করে ঈদগাহ, মসজিদ ও খোলা মাঠে সামিয়ানার নিচে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। সকালে ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায়ের মধ্যদিয়ে শুরু হয় পবিত্র দিনটি। এ বছর চুয়াডাঙ্গায় মোট ৭১৪টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। তারমধ্যে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকায় ৩৪টি, সদর উপজেলায় ২১৪টি, আলমডাঙ্গা উপজেলায় ২৩৯টি, দামুড়হুদা উপজেলায় ১২৯টি এবং জীবননগর উপজেলায় ৯৮টি। সকল ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। দেশ ও মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় মোনাজাত করেন মুসল্লিরা। ঈদের নামাজ শেষে কবরবাসীদের জন্য তাদের রুহের আত্মার মাগফেরাত কামনায় কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন মুসল্লিরা।


চুয়াডাঙ্গার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (চাঁদমারী মাঠ) মাঠে সকাল আটটায় কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসুল্লি ঈদের জামাতে অংশ নেন। এ জামাতে ইমামতি ও দোয়া পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা কোর্ট জামে মসজিদের ইমাম মুফতি রুহুল আমীন। এ বছর চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল নয়টায় দারুস সালাম ঈদগাহ ময়দানে, দামুড়হুদায় প্রধান জামাত সকাল সাড়ে আটটায় ডিএস দাখিল মাদরাসা ঈদগাহ ময়দানে, দর্শনায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল আটটায় কেরু’জ ফুটবল মাঠ প্রাঙ্গণে ও জীবননগরে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল নয়টায় জীবননগর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে। এ ছাড়াও চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকায় ৩৪টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।
চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন পৌর ঈদগাহ ময়দানে প্রথম জামাতে পরিবারের সদস্য ও নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ঈদের নামাজে অংশ নেন। নামাজ শেষে মুসুল্লিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় পরবর্তী চুয়াডাঙ্গা কবরী রোডস্থ নিজ বাসভবনে ফিরে প্রশাসনিক কর্মকর্তা-কর্মচারী, নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগর তাঁর নিজ গ্রাম রঘুনাথপুর-বাস্তপুর ঈদগাহ ময়দানে ঈদ-উল-ফিতরের নামাজ আদায় করেন। সেখানে পরিবার পরিজন, আত্মীয়-স্বজনসহ দলীয় নেতাকর্মীসহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন তিনি। চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু পৌর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় শেষে বাবার কবর জিয়ারত করেন। এরপর কেদারগঞ্জপাড়াস্থ নিজ বাসভবনে দলীয় নেকাকর্মী, পৌরবাসী ও সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
চুয়াডাঙ্গা জেলার সন্তান, কৃতি ব্যবসায়ী, সাহিদ গ্রুপের চেয়ারম্যান, সিঙ্গাপুর-বাংলাদেশ সোসাইটি’র উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ চেম্বার অব সিঙ্গাপুরের প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব সাহেদুজ্জামান টরিক পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চুয়াডাঙ্গায় ঈদ উদযাপন করেছেন। সকাল ৮টায় ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (চাঁদমারী) মাঠে কেন্দ্রীয় জামাতে ঈদের নামাজ আদায় করেন। এরপর পরিবার পরিজন, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও শুভাকাঙ্খিদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এ ছাড়াও ঈদের দিন পূর্বনির্ধারিত বেলা ১২টা থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলা শিল্পকলা একাডেমির সম্মুখে তাঁর সাহিদ গার্ডেনে ছিন্নমূল মানুষের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে এক মধ্যহ্নভোজে অংশ নেন। প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদি ঈদ উদযাপন করেছেন চুয়াডাঙ্গার নিজ গ্রাম তালতলায়। স্থানীয় ঈদগাহে নামাজ আদায় করেন তিনি। নামাজ শেষে পিতা-মাতার কবর জিয়ারত করেন এবং দলীয় নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্খিদের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অন্যতম সদস্য ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী মো. শরীফুজ্জামান শরীফ এবার পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করছেন চুয়াডাঙ্গাতে। সকাল ৮টায় চুয়াডাঙ্গা ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (চাঁদমারী) মাঠে তিনি নামাজ করেন। এরপর পুরাতন হাসপাতালপাড়াস্থ তাঁর নিজ বাসভবনে ফিরে পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ঈদ পরবর্তী চুয়াডাঙ্গা জেলা সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ ও নেতাকর্মীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন তিনি।
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আ.লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আসাদুল হক বিশ্বাস আলুকদিয়া মনিরামপুরে নিজগ্রামে ঈদগাহে নামাজ আদায় করেন। আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র হাসান কাদির গণু এরশাদপুরস্থ নিজ গ্রামের ঈদগাহে নামাজ আদায় করেন। দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান দর্শনা ইসলাম বাজারপাড়ায় তার নিজ এলাকায় ঈদের জামাত আদায় করেন। পরিবারের সকলকে সঙ্গে নিয়ে জীবননগর পৌর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন জীবননগর পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। নামাজ শেষে পৌর সভার নয়টি ওয়ার্ডের নেতাকর্মি ও সাধারণ জনগনের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
আলমডাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন ঈদ উদযাপন করেছেন নিজ উপজেলাধীন জামজামি ইউনিয়নের পাঁচলিয়া গ্রামে। দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনসুর বাবু তাঁর নিজ গ্রাম রঘুনাথপুর-বাস্তপুর ঈদগাহ ময়দানে ঈদ-উল-ফিতরের নামাজ আদায় করেন। জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান তাঁর নিজ গ্রাম খয়েরহুদা গ্রামের ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন। এরপর তারা নিজ বাড়িতে ফিরে দলীয় নেতাকর্মী, শুভাকাঙ্খী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়ে ব্যস্ত ছিলেন।
চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস তাঁর নিজ কর্মস্থল চুয়াডাঙ্গায় ঈদ উদযাপন করেছেন। দুপুরে জেলা প্রশাসনের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে মধ্যহ্নভোজে অংশ নেন তিনি। চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ মোহা. রবিউল ইসলাম মেহেরপুর জেলার গাংনীতে পৈতৃক বাড়িতে ঈদ উদযাপন করেন। সকালে স্থানীয় ঈদগাহে নামাজ আদায় শেষে প্রতিবেশী ও নিকটাত্মীয়দের সাথে কুশল বিনিময় করেন। পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম (বার) সকালে পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে পুলিশ লাইন্স মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন। এরপর তাদের সঙ্গেই ঈদ উপলক্ষে বড় খানায় অংশ নেন। পরবর্তী সময় চার থানা ও বিভিন্ন ক্যাম্পে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল ইমাম হাসান চুয়াডাঙ্গা জাফরপুরস্থ বিজিবি’র ব্যাটালিয়ান সদর দপ্তর ঈদগাহ ময়দানে সৈনিকদের সাথে নামাজ আদায় করেন এবং কুশল বিনিময় করেন। নামাজ শেষে বিভিন্ন ক্যাম্পে কর্তব্যরত বিজিবি’র ক্যাম্প কমান্ডার ও সৈনিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। দুপুরে ব্যাটালিয়ান সদরের সকল সৈনিকদের নিয়ে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন। ব্যস্ত সময় শেষে পরিবারের সাথে দিনটি উদযাপন করেন তিনি। সিভিল সার্জন ডা. খায়রুল আলম পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঢাকাতে ঈদ উদযাপন করেছেন।
এদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আজাদুল ইসলাম আজাদ তাঁর নিজ গ্রামের ঈদগাহ ময়দান ঈশ্বরচন্দ্রপুরে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মন্জু দর্শনা ইসলাম বাজারপাড়ায় তার নিজ এলাকায় ঈদের জামাত আদায় করেন। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খুস্তার জামিল ও যুগ্ম সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন চুয়াডাঙ্গার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন। কেন্দ্রীয় বিএনপি’র উপ-কোষাধ্যক্ষ ও চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শিল্পপতি আলহাজ্ব মাহমুদ হাসান খান বাবু এবার স্ব পরিবারে ঢাকাতেই ঈদ করেছেন। সকালে গুলশান আজাদ মসজিদে ঈদের জামাতে অংশ নেন তিনি। এরপর ঢাকাস্থ দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মুজিবুল হক মালিক মজু পৌর ঈদগাহে ও যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আব্দুল জব্বার সোনা ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (চাঁনমারী) মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী চুয়াডাঙ্গা জেলা আমির আনোয়ারুল হক মালিক নিজ মোমিনপুর ইউনিয়নের ইউনিয়নের আমিরপুর গ্রামের ঈদগাহে নামাজ শেষে কবর জিয়ারত করেন। সেক্রেটারী মো. রুহুল আমিন নামাজ পড়েন জীবননগর উপজেলার নিজ গ্রাম ধোপাখালী ঈদগাহ ময়দানে। নামাজ শেষে নেতাকর্মী ও এলাকাবাসীর সাথে কূশল বিনিময় করেন।
ওয়েভ ফাউন্ডেশনের নিবার্হী পরিচালক মহাসিন আলী তার নিজ এলাকা দর্শনা কলেজপাড়ায় ঈদ উদযাপন করেছেন। দর্শনা কেরু এ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহেদ আলী আনসারী দর্শনাতে ঈদের নামাজ আদায় করেন। চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি সরদার আল আমিন নামাজ পড়েন নিজগ্রাম দৌলতদিয়াড় সরদার পাড়ায় ও সাধারণ সম্পাদক রাজিব হাসান কচি দৌলৎদিয়াড় দক্ষিণপাড়া ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন। বেলা ১২টা থেকে সারাদিন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবে সাংবাদিকসহ সূধীজনদের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় ব্যস্ত সময় পার করেন তাঁরা। দৈনিক সময়ের সমীকরণ’র প্রধান সম্পাদক নাজমুল হক স্বপন চুয়াডাঙ্গা ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (চাঁদমারী মাঠে) মাঠে কেন্দ্রীয় জামাতে নামাজ আদায় করেন। উল্লেখ্য, এবছর জেলায় ৭২৪ টি স্থানে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ঈদের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আলমডাঙ্গা:
যথাযথ ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে আলমডাঙ্গায় পবিত্র ঈদুর ফিতর উদযাপিত হয়েছে। উপজেলার দারুস সালাম ঈদগাহ মাঠে প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও আলমডাঙ্গা গোবিন্দপুর ঈদগাহ মাঠে, এরশাদপুর ঈদগাহ মাঠে, বন্ডবিল ঈদগাহ মাঠে, ওয়াপদা মসজিদ প্রাঙ্গণে, পৌরসভার বাইতুন নুর জামে মসজিদসহ উপজোর বিভিন্ন ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
জীবননগর:
জীবননগরে আনন্দঘন পরিবেশের মধ্যে দিয়ে পালিত হল পবিত্র ঈদুল ফিতর। এ বছর জীবননগর উপজেলায় ১০২টি ঈদগাহ ময়দানে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জীবননগর পৌর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টার সময় পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এখানে ঈদের নামাজ আদায় করেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সিরাজুল ইসলাম, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ গনি মিয়া, জীবননগর উপজেলা পরিষদের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আ. লতিফ অমল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা। একই দিনে উপজেলার খয়েরহুদা নিজ গ্রামে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান।
মেহেরপুর:
মেহেরপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে পালিত হয়েছে পবিত্র ঈদ উল ফিতর। গত বুধবার মেহেরপুর কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন, জেলা প্রশাসক আতাউল গনি, পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটনসহ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, স্থানীয় মুসল্লীরা মেহেরপুর কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করেন। এসময় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী অধ্যপক ফরহাদ হোসেন উপস্থিত মুসল্লীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। মেহেরপুর পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন ঈদগাহে মুসল্লীদের অভ্যর্থনা জানান। এখানে ইমামতি করেন মেহেরপুর বড়বাজার জামে মসজিদের ইমাম আব্দুল হান্নান খান। এরপরে সকাল সাড়ে ৮টায় (মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কে) বিএটিবি সংলগ্ন পুরাতন পৌর ঈদগাহে দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এখানে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ গোলাম রসুল, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. ইয়ারুল ইসলামসহ স্থানীয় মুসল্লীরা নামায আদায় করেন। এখানকার জামাতে ইমামতি করেন হোটেল বাজার জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ রোকনুজ্জামান। এর আগে সকালে পৌনে ৭টায় মেহেরপুরের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয় শহীদ ড. সামসুজ্জোহা পার্কে। এখানে আহলে হাদিস অনুসারীদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর শিল্প বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আরিফুল এনাম বকুল, সাংবাদিক তোজাম্মেল আজম, ইয়াদুল মোমিনসহ আহলে হাদিস অনুসারীরা নামাজ আদায় করেন। এখানে পদার্র অন্তরালে মহিলারাও নামায আদায় করেন।