মুশফিক মুমিুলের জুটির রেকর্ড

46

খেলাধুলা প্রতিবেদন
বাংলাদেশের হয়ে টেস্টে সবচেয়ে বেশি দুইশ ছোঁয়া জুটির রেকর্ড এখন মুশফিক ও মুমিনুলের। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টের তৃতীয় দিনে এই অর্জনে নাম লিখিয়েছেন তারা। দশটি দুইশ পেড়োনো জুটির মধ্যে এ দুজনের হলো এই নিয়ে তিনটি। ছাড়িয়ে গেলেন তামিম ইকবাল-ইমরুল কায়েস জুটিকে। এই দুজনের আছে দুটি। তামিম-ইমরুলের দুটি দুইশ ছোঁয়া জুটির একটি অবশ্য তিনশ ছাড়ানো। ২০১৫ সালে খুলনায় পাকিস্তানের বিপক্ষে তাদের উদ্বোধনী জুটি ছিল ৩১২ রানের। ২০১৪ সালের নভেম্বরে চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তারা গড়েছিলেন ২২৪ রানের উদ্বোধনী জুটি। সেরা এই ১০ জুটির মধ্যে পাঁচটিতেই জড়িয়ে আছে মুশফিকুর রহীমের নাম। এর মধ্যে রয়েছে যে কোনো উইকেটে বাংলাদেশের রেকর্ড জুটিটিও। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে ওয়েলিংটন টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পঞ্চম উইকেটে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে ৩৫৯ রানের জুটি গড়েছিলেন মুশফিক। এই তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকা জুটিটি ২৬৭ রানের। ২০১৩ সালের মার্চে গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মোহাম্মদ আশরাফুলের সঙ্গে পঞ্চম উইকেটে এই জুটি গড়েছিলেন মুশফিক। চার আর পাঁচ নম্বরেও মুমিনুল-মুশফিক। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চতুর্থ উইকেটে ২৬৬ রানের জুটি গড়েছিলেন তারা। সেই ইনিংসেই মুশফিক পেয়েছিলেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি, মুমিনুল খেলেছিলেন দেড়শ ছাড়ানো ইনিংস। তার আগে একই বছরের জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রামে তৃতীয় উইকেটে ২৩৬ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটসম্যান। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিজেদের পরের টেস্টেই আবার দুজনের জুটি স্পর্শ করলো ডাবল সেঞ্চুরি। দুজনই পেয়েছেন সেঞ্চুরির দেখা। মুমিনুলের বিদায়ে ভাঙে ২২২ রানের চতুর্থ উইকেট জুটি। এই ইনিংস দিয়ে দুজনের সেঞ্চুরি জুটি হলো ৪টি। বাংলাদেশের হয়ে এর চেয়ে বেশি শতরানের জুটি আছে কেবল একটি জুটির। হাবিবুল বাশার ও জাভেদ ওমর বেলিম জুটি তিন অঙ্ক ছুঁয়েছেন পাঁচ দফায়। এই ইনিংসের পথেই মুশফিক-মুমিনুলের জুটির মোট রান স্পর্শ করেছে এক হাজার। এই টেস্টে নামার আগে একসঙ্গে জুটি বেঁধে তাদের রান ছিল ৯৯১। এই দুজন ছাড়া বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের জুটিতে হাজার রান আছে আর ছয়টি। ২ হাজার ৪৫৪ রান নিয়ে সবার ওপরে মুশফিকের সঙ্গে সাকিব আল হাসানের জুটি।