মুজিবনগরে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ

221

মেহেরপুর অফিস:
মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুরে সালমা (২০) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সালমার ময়নাতদন্ত শেষে মেহেরপুর সদর উপজেলার কোলা গ্রামে তাঁর লাশ দাফন করা হয়েছে। জানা গেছে, প্রায় দুই বছর পূর্বে মেহেরপুর সদর উপজেলার কোলা গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে সালমার সঙ্গে মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের হেকমত আলীর ছেলে হিরনের বিয়ে হয়। গত বুধবার রাত ১০টার দিকে মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুর গ্রামে সালমার শ্বশুর বাড়ি থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। মুজিবনগরের সোনাপুর গ্রামের এক বাড়িতে গৃহবধূর লাশ রয়েছে, এমন সংবাদ পেয়ে পুলিশ সালমার লাশ উদ্ধার করে।
এদিকে, সালমার স্বামী হিরন বলেছেন, ‘আমার স্ত্রীর বাচ্চা না হওয়ার কারণে বাবা-মা সমস্যা করত। আমার বাবা-মা বলত, তোর বউ একটা খারাপ মেয়ে, এর কখনো বাচ্চা হবে না। আমি একজন দিনমজুর, বেকারিতে কাজ করি। বাড়িতে আমার স্ত্রী যখন একা থাকত, তখন আমার বাবা-মা আমার স্ত্রীর ওপর অত্যাচার করত। গতরাতে (বুধবার) রাত ১০টার দিকে আমি কাজ থেকে বাড়ি ফিরে দেখি আমার স্ত্রী সালমার লাশ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলছে। আমি বাবা-মা কে জিজ্ঞেস করলে তারা কোনো কিছু উত্তর না দিয়ে বলেছে, আমরা কিছু জানি না।’
এসআই পলাশ কুমার রায় বলেন, তদন্তের ফলাফল হাতে না পাওয়া পযর্ন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। গ্রামবাসীর কাছ থেকে জানা যায়, সালমার শ্বশুর হেকমত আলী পুত্রবধূকে কুপ্রস্তাব দেওয়ায় রাজি না হওয়ায় তাঁকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। সালমার শ্বশুর হেকমত আলী ও শাশুড়ি আরবি খাতুন পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে। সালমার পিতাসহ তাঁর আত্মীয়-স্বজন এ হত্যাকাণ্ডের সুবিচার চেয়েছেন।